নজিরবিহীন জটিলতা, আইনি পথের সওয়ারি নির্বাচন কমিশন

নজিরবিহীন জটিলতা, আইনি পথের সওয়ারি নির্বাচন কমিশন

নজিরবিহীন জটিলতা, আইনি পথের সওয়ারি নির্বাচন কমিশনপঞ্চায়েত ভোট নিয়ে আদালতে যাচ্ছে নির্বাচন কমিশন। সোম অথবা মঙ্গলবার আদালতে মামলা দায়ের করতে চলেছে কমিশন। সোমবারই রাজ্যের চিঠির জবাব দেবে কমিশন। এর আগে তৃণমূলের তরফ থেকে মুকুল রায়ের প্রচ্ছন্ন হুমকির পরেও আজ বিজ্ঞপ্তি জারি করেনি কমিশন। ফলে ২৬, ৩০ এপ্রিল ভোটের সম্ভাবনা কার্যত নেই। নির্বাচন অমিশনের নিয়ম অনুয়ায়ী ভোটের ২৮ থেকে ৩৫ দিন আগে বিজ্ঞপ্তি জারি করতে হয় কমিশনকে। নিয়ম মেনে ২৬ তারিখ ভোট করতে হলে আজই বিজ্ঞপ্তি জারির শেষ দিন ছিল। ফলে আজ কমিশন বিজ্ঞপ্তি জারি না করায় রাজ্য সরকারের ঘোষিত নির্ঘণ্ট মেনে ভোট করা কার্যত অসম্ভব।   দুপুরের অবস্থান থেকে সরে এল রাজ্য নির্বাচন কমিশন। কমিশন সূত্রে জানা গিয়েছে আদালতের দড়জায় যাওয়ার রাস্তাই খোলা রাখছেন মীরা পাণ্ডেরা। কমিশন রাজ্য সরকারের সংঘাতে আজ `ঘি` ঢালেন তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক মুকুল রায়। মহাকরণের চার দেওয়ালে `প্রোটোকল` মেনে যে কথা বলা সম্ভব হচ্ছিল না। মুকুল রায়ের সাংবাদিক বৈঠকে সে কথাই বলল তৃণমূল কংগ্রেস।

ভোট বানচাল করে দিতে রাজ্য নির্বাচন কমিশন ষড়যন্ত্র চালচ্ছে বলে অভিযোগ করলেন মুকুল রায়। তিনি বলেন, "ভোট পিছিয়ে দেওয়ার জন্য ষড়যন্ত্র করছে কমিশন। বিরোধীদের হার রুখতে চলছে ষড়যন্ত্র।"

তিনি আরও বলেন, রাজ্য সরকার চেয়েছিল ফেব্রুয়ারিতে পঞ্চায়েত ভোট হোক। গরমে নির্বাচন হলে দাবদাহে কোনও সরকারি কর্মীর মৃত্যু হলে দায়ী থাকবে নির্বাচন কমিশন। মুকুলের কথায়, "কমিশনকে সতর্ক করে দিচ্ছি। গরমে একজনেরও মৃত্যু হলে কমিশন দফতরের সামনে দেহ নিয়ে বিক্ষোভ হবে।"

আজ আগের অবস্থানেই অনড় থেকে পঞ্চায়েতমন্ত্রী মহাকরণে জানান, `২৬ ও ৩০ এপ্রিল ভোট হবে`। সচিবদের সঙ্গে ম্যরাথন বৈঠকের পর একথা জানান সুব্রত মুখার্জি। কমিশনকে আজই দ্বিতীয় দফায় চিঠি পাঠানোর কথা ঘোষণা করেন তিনি। সন্ধ্যের আগেই সেই চিঠি পৌঁছয় রাজ্য নির্বাচন দফতরে। চিঠিতে কমিশনের সমস্ত প্রশ্নের জবাব দেওয়া হচ্ছে বলে মন্তব্য করেন সুব্রত।





First Published: Saturday, March 30, 2013, 20:52


comments powered by Disqus