‘কঙ্গনাকে চুলের মুঠি ধরে মেরেছেন আদিত্য’, আদালতে সাক্ষ্য দিতে প্রস্তুত প্রত্যক্ষদর্শী

Last Updated: Wednesday, September 13, 2017 - 10:38
‘কঙ্গনাকে চুলের মুঠি ধরে মেরেছেন আদিত্য’, আদালতে সাক্ষ্য দিতে প্রস্তুত প্রত্যক্ষদর্শী

ওয়েব ডেস্ক : কঙ্গনা রানাওয়াত এবং আদিত্য পাঞ্চলি বিতর্কে নয়া মোড়। কঙ্গনা কোথায় তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন, আদিত্য যখন বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন, তখন সামনে এল আরও এক ব্যক্তির নতুন দাবি। তিনি দাবি করেছেন, আদিত্য পাঞ্চলি যে প্রকাশ্যে কঙ্গনা রানাওয়াতকে মারধর করেছেন, সেটা দেখেছেন তিনি। প্রয়োজন পড়লে আদালতে গিয়ে কঙ্গনার হয়ে তিনি সাক্ষ্য দিতেও রাজি।

কী হয়েছিল সেদিন?

ওই ব্যক্তির দাবি, কয়েক বছর আগের ঘটনা। রাত তখন প্রায় পৌনে বারোটা। তিনি বাইক চালাচ্ছিলেন। ওই সময় জুহুর একটি পাঁচতাঁরা হোটেলের সামনে আচমকাই এক মহিলার চিত্কার শুনতে পান তিনি। কে চিত্কার করছেন, তা দেখতে গিয়ে দেখেন, অটো রিক্সায় উঠে এক মহিলা বাঁচাও বাঁচাও করে চিত্কার করছেন এবং রিক্সা চালককে আরও জোরে গাড়ি চালাতে বলেন। হঠাত করেই ওই অটোরিক্সা তাঁর সামনে এলে, ওই মহিলা চিত্কার করেন, ‘দয়া করে আমায় বাঁচান।’ এরপরই সাদা রঙের একটি গাড়ি থেকে এক ব্যক্তি নামেন এবং ওই মহিলার চুলের মুঠি ধরে টেনেহিঁচড়ে নিয়ে গিয়ে মারতে শুরু করেন। ওই মহিলাকে বাঁচাতে গেলে, গাড়ি থেকে নেমে ওই ব্যক্তি বলেন, ‘সর্দারজি আপনি সরে যান। এটা আমাদের পারিবারিক বিষয়।’

এরপরই ওই ব্যক্তি দাবি করেন, তিনি সেদিন যাঁদের দেখেছিলেন, তাঁদের মধ্যে একজন কঙ্গনা রানাওয়াত এবং অন্যজন আদিত্য পাঞ্চলি। সেই রাতে কঙ্গনা রানাওয়াতকে প্রকাশ্যে রাস্তার উপর চুলের মুঠি ধরে আদিত্য পাঞ্চলি মারধর করেছিলেন বলে দাবি করেছেন ওই ব্যক্তি। ওই সময় চিত্কার, চেঁচামেচি শুনে আশপাশের বেশ কিছু মানুষও সেখানে হাজির হয়ে যান। প্রায় ৮-১০ জন সেখানে হাজির হলে, কঙ্গনা রাস্তা টপকে সেখান থেকে পালিয়ে যান।

ওই রাতের ঘটনার পর পুলিশকে জানানো হয়েছিল এবং একটি জনপ্রিয় সংবাদপত্রের সাংবাদিককেও জানানো হয়েছিল বলে দাবি করেছেন ওই ব্যক্তি। শুধু তাই নয়, কঙ্গনার হয়ে যদি আদালতে সাক্ষ্য দিতে হয়, তাহলে তিনি রাজি  বলেও জানিয়েছেন ওই ব্যক্তি।

শুনুন কী কী বললেন ওই ব্যক্তি..

 



First Published: Wednesday, September 13, 2017 - 10:38
comments powered by Disqus