খুলল গয়ানার বাক্স

খুলল গয়ানার বাক্স

গয়নার বাক্স। দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর আজ মুক্তি পাচ্ছে অপর্ণা সেনের ছবি। মুক্তির আগে এক দৈনিককে দেওয়া সাক্ষাতকারে নস্টালজিক হয়ে পড়লেন অপর্ণা সেন। জানালেন বছর ২০ আগে এক পূজাবার্ষিকীতে গয়নার বাক্স পড়েছিলেন তিনি।

Updated: Apr 12, 2013, 04:35 PM IST

গয়নার বাক্স। দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর আজ মুক্তি পাচ্ছে অপর্ণা সেনের ছবি। মুক্তির আগে এক দৈনিককে দেওয়া সাক্ষাতকারে নস্টালজিক হয়ে পড়লেন অপর্ণা সেন। জানালেন বছর ২০ আগে এক পূজাবার্ষিকীতে গয়নার বাক্স পড়েছিলেন তিনি। লাতিন আমেরিকার সাহিত্যের ম্যাজিক রিয়ালিজমের ছোঁয়া পেয়েছিলেন তিনি। তাই গয়নার বাক্সকে শুধুমাত্র ভূতের গল্প হিসেবে দেখতে নারাজ অপর্ণা। তাঁর কাছে গয়নার বাক্সে হাস্যরসের মধ্যে মিলেমিশে রয়েছে নারীবাদী অনুভূতির বহিঃপ্রকাশ।

গল্পের মুখ্য চরিত্র পিসিমা(মৌসুমি চ্যটার্জি) একজন প্রতিবাদী নারী। বাল্যবিধবা পিসিমা প্রায় অশিক্ষিত, বিয়ের সময় যৌতুক হিসেবে বাপের বাড়ি থেকে পাওয়া গয়নার বাক্স আঁকড়ে ধরে বাঁচেন পিসিমা। অন্যদিকে বাড়ির সকলেরই শকুন দৃষ্টি গয়নার বাক্সের ওপর। অপর্ণা সেন জানালেন প্রথমবার পড়েই তিনি পিসিমার ভক্ত হয়ে গিয়েছিলেন। বঞ্চনা, বৈধব্য, অপূর্ণ ইচ্ছা কিছুই তাঁর মনকে প্রভাবিত করতে পারেনি। পিসিমা একজন সুন্দরী, রক্তমাংসে গড়া, সদিচ্ছায় পরিপূর্ণ মহিলা ছিলেন যাঁকে সমাজ বাধ্য করেছিল সাদা শাড়ি পরতে, নিরামিষ খাবার খেতে, সম্পূর্ণ পুরষবর্জিত জীবন যাপন করতে। বাক্সভর্তি গয়না গায়ে তোলার অধিকার ছিল না তাঁর। গয়না গুনে গুনেই যৌবন কেটে গিয়েছিল পিসিমার। বাক্সর হাতবদলের মধ্য দিয়ে নারীদের উত্থানের মিল খুঁজেছেন অপর্ণা। পিসিমার কাছে গয়না চিরকাল বাক্সবন্দি ছিল। সোমলতা(কঙ্কনা) পরের প্রজন্মের নারী গয়নাকে ব্যবহার করে পুঁজি হিসেবে। আর বসন(শ্রাবন্তী), সত্তর দশকের শিক্ষিতা, আধুনিকার গয়নার প্রতি কোনও উত্‍সাহই নেই।

অপর্ণা জানালেন নামমাত্র বাজেটে তিনি তৈরি করেছেন গয়নার বাক্স। কলাকূশলীরা কেউই তাঁদের উপযুক্ত পারিশ্রমিক পাননি। পারমিতার একদিন বানানোর সময় থেকেই গয়নার বাক্সর পরিকল্পনা করেছিলেন অপর্ণা সেন। অবশেষ এক দশক পর মুক্তি পাচ্ছে তাঁর স্বপ্নের ছবি।
গয়নার বাক্সর ট্রেলর দেখতে ক্লিক করুন