ঋতুদাকে আমার হিংসে হয়: সুজয় ঘোষ

শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়ের চোরাবালি অবলম্বনে সত্যান্বেষী পরিচালনা করছেন ঋতুপর্ণ ঘোষ। আর সেই ছবিতে ব্যোমকেশ বক্সীর ভূমিকায় অভিনয় করছেন সুজয় ঘোষ। আপাতত শিলিগুড়িতে চলছে ছবির শুটিং। সেখান থেকেই ব্যোমকেশ আর অজিতের(অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায়) ফার্স্ট লুক দর্শকদের সামনে নিয়ে এলেন ঋতুপর্ণ।

Updated: Apr 4, 2013, 09:59 PM IST

শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়ের চোরাবালি অবলম্বনে সত্যান্বেষী পরিচালনা করছেন ঋতুপর্ণ ঘোষ। আর সেই ছবিতে ব্যোমকেশ বক্সীর ভূমিকায় অভিনয় করছেন সুজয় ঘোষ। আপাতত শিলিগুড়িতে চলছে ছবির শুটিং। সেখান থেকেই ব্যোমকেশ আর অজিতের(অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায়) ফার্স্ট লুক দর্শকদের সামনে নিয়ে এলেন ঋতুপর্ণ।
গত বছরই বক্সঅফিস মাতিয়ে সমালোচকদেরও পিঠ চাপড়ানি আদায় করে নিয়েছে সুজয়ের পরিচালিত ছবি কাহানি। ঋতুপর্ণর সঙ্গেই কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে ঘরে তুলেছেন জাতীয় পুরস্কারও। সেই সুজয়ই এবার ঋতুর ক্যামেরার সামনে সত্যান্বেষীর ভূমিকায়। বললেন, "আমার ঋতুদাকে হিংসে হয়। পরিচালনা সম্পর্কে ঋতুদার মত এত স্বচ্ছ ধারনা আমার নেই। আমার মত আনাড়ি অভিনেতাদের থেকেও সেরাটা বের করে আনতে পারেন ঋতুদা। অভীক মুখোপাধ্যায়ও একজন অসাধারণ সিনেমাটোগ্রাফার।" সত্যান্বেষী প্রযোজনা করছে শ্রী ভেঙ্কটেশ ফিল্মস।
একেতো জীবনের প্রথম অভিনয়। তারওপর একেবারে ব্যোমকেশ বক্সীর চরিত্র। কতটা নার্ভাস সুজয়? জানালেন, "ভয় তো করছে। প্রথম শটটা খুব চাপের ছিল। চারটে জিনিস একসঙ্গে করতে হয়েছে আমাকে। ধুতি পরা, ঘোড়ায় চড়া, সংলাপ মনে রাখা আর অবশ্যই নিশ্বাস নেওয়া! খুব লম্বা শট ছিল। তবে দ্বিতীয় টেকেই ওকে হয়ে গেছে। ইউনিটের সকলে বলছিল আমাকে ভাল লাগছে দেখতে। তাই ভাবছ এবার থেকে শুধু ধুতি-পাঞ্জাবিই পরব। শুধু একটাই সমস্যা। ধুতিতে মোবাইল রাখার পকেট থাকে না!"
সুজয়, অনিন্দ্য ছাড়াও ছবিতে রয়েছেন অর্পিতা চট্টোপাধ্যায় ও ইন্দ্রনীল সেনগুপ্ত। শুভ মহরতের পর ঋতুদার সঙ্গে এটা দ্বিতীয় ছবি অনিন্দ্যর।