বেটিংয়ে জড়িত শিল্পা-পতি, জানাল দিল্লি পুলিস

বেটিংয়ে জড়িত শিল্পা-পতি, জানাল দিল্লি পুলিস

বেটিংয়ে জড়িত শিল্পা-পতি, জানাল দিল্লি পুলিসআইপিএল স্পট ফিক্সিং পালার জমজমাট নতুন অধ্যায়ের উপর থেকে পর্দা উঠল আজ। নতুন অঙ্কের নাম দেওয়া যেতেই পারে ''পতির পূণ্যে সতীর পূণ্য''। স্বামী রাজ কুন্দ্রার সঙ্গে বেটিংয়ে জড়িত থাকার অভিযোগ উঠল বলিউডি নায়িকা তথা রাজস্থান রয়্যালসের অন্যতম মালকিন শিল্পা শেট্টির বিরুদ্ধে। কুন্দ্রার ব্যবসায়িক সহযোগী উমেশ গোয়েঙ্কা পুলিসি জেরায় দাবি করেছেন কুন্দ্রার সঙ্গেই বেটিংয়ে জড়িত তাঁর বউও।

অন্যদিকে, সূত্রে খবর দ্রুত এই বিষয় নিয়ে আলোচনায় বসতে চলেছে বিসিসিআই। রাজস্থানের সঙ্গে আইপিএল চুক্তি ভেঙে ফেলতে পারে তারা। সেক্ষেত্রে পরের বছর আইপিএল থেকে বাদ পড়বে রাজস্থান রয়্যালস।

রাজস্থান রয়্যালস থেকে আইপিএল স্পট ফিক্সিংয়ের স্পট লাইট শ্রীনি ও তাঁর জামাইয়ের সৌজন্যে ঘুরে গিয়েছিল চেন্নাই সুপার কিংসের দিকে। গতকাল থেকে ফের সেই বিতর্কিত আলোর নিশানায় ফের রাজস্থান রয়্যালস।

আজ সকাল থেকেই আইপিএল স্পট ফিক্সিং কাণ্ড ফের আর একবার বিস্ফোরক মোড় নিয়েছিল। দিল্লি পুলিস কমিশনার নীরজ কুমার আজ সাংবাদিকদের জানিয়েছেন পুলিসি জেরায় রাজস্থান রয়্যালসের অন্যতম মালিক রাজ কুন্দ্রা বেটিংয়ে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে নিয়েছেন। শুধু তাই নয় জেরায় কুন্দ্রা নাকী জানিয়েছেন এই বেটিংয়ের জেরে তিনি প্রচুর অর্থ খুইয়েছেন।

ঘোড়দৌড় ছাড়া আর যে কোনও খেলার উপর জুয়া বা বেটিং খেলা আইনত নিষিদ্ধ। সেক্ষেত্রে অভিযোগ প্রমাণিত হলে শাস্তি নিশ্চিত কুন্দ্রার। তবে এদেশে বেটিং এখনও পর্যন্ত জামিন যোগ্য অপরাধ।

নীরজ কুমার জানিয়েছেন ব্যবসায়িক সহকর্মী উমেশ গোয়েঙ্কার মাধ্যমে বেটিং করতেন শিল্পা শেট্টির স্বামী। তিনি তাঁর দল রাজস্থান রয়্যালের উপর বেট লাগাতেন।

কুন্দ্রার, সহযোগী গোয়েঙ্কা পুলিসি জেরায় ভেঙে পড়েন। তিনিই পুলিসকে জানানা রাজস্থান দলের মালিক কুন্দ্রা বেটিংয়ের সঙ্গে জড়িত।

তবে বলিউডি তারকা শিল্পা শেট্টি অবশ্য দাবি করেছেন উমেশ গোয়েঙ্কা তাঁর স্বামীর নামের অপব্যবহার করছেন।

ইতিমধ্যেই  রাজ কুন্দ্রার পাসপোর্ট বাজেয়াপ্ত করেছে দিল্লি পুলিস। স্পট ফিক্সিং নিয়ে তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত তিনি দেশ ছেড়েও যেতে পারবেন না বলেও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।  

একই সূত্র থেকে প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী শিল্পা শেঠির স্বামীর গ্রেফতারের সম্ভাবনাও উড়িয়ে দিচ্ছে না দিল্লি পুলিস।

তবে কুন্দ্রা ও তাঁর বলিউড নায়িকা স্ত্রী শিল্পা শেঠি দু'জনেই এই খবর অস্বীকার করেছেন। আজ সকাল থেকেই টুইটারে স্বামী-স্ত্রী দুজনেই সংবাদ মাধ্যমের বিরুদ্ধে রীতিমত খড়্গহস্ত। কুন্দ্রা টুইট করে বলেছেন ''আমি মুম্বইয়ে বাড়ি ফিরে এসেছি। দয়া করে দিল্লি ক্রাইম ব্রাঞ্চকে তাঁদের কাজ করতে দিন। মিডিয়া ভ্রান্ত মন্তব্য করা বন্ধ করুক।'' অন্যদিকে তাঁর স্ত্রীও সমান রাগের সঙ্গে টুইটারেজানিয়েছেন ''কোনও রকম প্রমাণ ছাড়াই মিডিয়া যে ধরনের বিভ্রান্তিকর খবর ছড়াচ্ছে তা সত্যিই হতাশার। মোটেও এই জিনিস বরদাস্ত করা হবে না।''

পুলিস সূত্র দাবি করেছে কুন্দ্রা ফিক্সিংয়ের সঙ্গে জড়িত না থাকলেও বেটিংয়ের সঙ্গে অবশ্যই জড়িত ছিলেন।

গতকালই দিল্লি পুলিস রাজ কুন্দ্রা ও তাঁর বন্ধু ও ব্যবসার সহযোগী উমেশ গোয়েঙ্কাকে প্রায় ১২ ঘণ্টা ধরে জেরা করে দিল্লি পুলিস। আজকেও কুন্দ্রা ও তাঁর সহযোগীকে জেরা করার কথা  দিল্লি পুলিসের।

রাজস্থান রয়্যালসের ক্রিকেটার সিদ্ধার্থ তেওয়ারির সাক্ষ্যের ভিত্তিতেই জেরার মুখোমুখি হতে হয় রাজ কুন্দ্রাকে। পুলিস রাজস্থান রয়্যালসের মালিকি ভাগিদারী নিয়েও স্পষ্ট ধারণা করতে চেয়েছিল বলে খবর।

যদিও কুন্দ্রা সম্পর্কিত গুঞ্জন নিয়ে এখনও স্পষ্ট করে কিছু জানায়নি দিল্লি পুলিস।

রাজস্থান রয়্যালসের ১১.৭%-এর মালিক বলিউড নায়িকা শিল্পা শেঠির শিল্পপতি স্বামী রাজ কুন্দ্রা।

প্রবাসি ভারতীয় ৪২ বছরের কুন্দ্রা আদতে ব্রিটিশ নাগরিক। তিনি ও গোয়েঙ্কা এক সঙ্গে একটি স্টিল কোম্পানি চালান। ওই কোম্পানির ৪২% শেয়ার কুন্দ্রার দখলে। স্পট ফিক্সিং কাণ্ডে রাজ সাক্ষী সিদ্ধার্থ তেওয়ারি পুলিসের কাছে দাবি করেছেন আইপিএলে একটি ম্যাচ শুরু হওয়ার আগে আহমেদাবাদের পিচ ও তাঁদের দল বিন্যাস সম্পর্কে জানতে চেয়েছিলেন।

যদিও এখনও পর্যন্ত পুলিস দাবি করছে রাজস্থান দলের মালিকানা বিন্যাস জানতেই কুন্দ্রাকে গতকাল জেরা করা হয়েছিল।



















First Published: Thursday, June 06, 2013, 16:48


comments powered by Disqus