৫০ বছর পর অস্কারে পাকিস্তানের সিনেমা

পাঁচ দশক পর সিনেমার জগতের সবচেয়ে বড় পুরস্কারে পা দিচ্ছে পাকিস্তান। ৫০ বছর পর পাকিস্তান সিদ্ধান্ত নিল এ বার তারা অস্কারের বিদেশি বিভাগে মনোনয়ন পেশ করবে। যদিও এখনও ঠিক করা হয়নি কোন সিনেমাকে তারা এ বছরের অস্কারে পাঠাবে।

Updated: Aug 3, 2013, 04:18 PM IST

পাঁচ দশক পর সিনেমার জগতের সবচেয়ে বড় পুরস্কারে পা দিচ্ছে পাকিস্তান। ৫০ বছর পর পাকিস্তান সিদ্ধান্ত নিল এ বার তারা অস্কারের বিদেশি বিভাগে মনোনয়ন পেশ করবে। যদিও এখনও ঠিক করা হয়নি কোন সিনেমাকে তারা এ বছরের অস্কারে পাঠাবে।
২০১১ অস্কারে পাকিস্তানের প্রথম মহিলা হিসাবে অস্কার জিতে ইতিহাস তৈরি করেন শারমিন ওবায়েদ চিনয়। শারমিনের ছবির বিষয় ছিল পাকিস্তানের অ্যাসিড সন্ত্রাসের শিকার মহিলাদের দুঃখের কথা। এর পরই গোটা পাকিস্তান নড়েচড়ে ওঠে। হুঁস ফেরে সকলের। সবাই বুঝতে পারে, তাই তো যুদ্ধ-সন্ত্রাস-বিস্ফোরণ, রাজনৈতিক টানাপোড়েনে তো একবারও খেয়ালই হয়নি যে সিনেমাও দেশের একটা গর্বের প্রতীক হয়ে উঠতে পারে।
আর তাই সব ভুলে অস্কারের মনোনয়ন পাঠাতে চলেছে পাকিস্তান। অস্কারের নিয়ম অনুযায়ী প্রতি দেশ থেকে একটি করে বিদেশি বিভাগে মনোননয়ন পেশ করা যায়। এ বছর ২২টি পাকিস্তানি ছবি মুক্তি পেয়েছে। সেগুলির মধ্য থেকেই একটি পাঠানো হবে অস্কারের জন্য। এখনও পর্যন্ত মাত্র দুটি সিনেমাকে অস্কারের জন্য পাঠিয়েছিল পাকিস্তান। সেগুলি ছিল জাগো হুয়া সাবেরা (১৯৫৯), ঘুংঘাট (১৯৬৩)।

Tags: