পাখা, শ্যাম্পু ও গীতা নিয়ে জেলে সঞ্জয়

জেলে অতিথি আপ্যায়ন না পেলেও কিছু প্রয়োজনীয় জিনিস সঙ্গে রাখার অনুমতি পেলেন সঞ্জয়। বাড়ি থেকে তাঁকে শোয়ার গদি, বালিশ, পাখা, টয়লেটের প্রয়োজনীয় সামগ্রী ও মশার ওষুধ নিয়ে যাওয়ার অনুমতি দিয়েছে জেল কর্তৃপক্ষ। এছাড়াও বাড়ি থেকে ওষুধ ও মাঝেমধ্যে জেলে বসে বাড়ির খাবারও খেতে পারবেন সঞ্জয়।

Updated: May 17, 2013, 03:50 PM IST

জেলে অতিথি আপ্যায়ন না পেলেও কিছু প্রয়োজনীয় জিনিস সঙ্গে রাখার অনুমতি পেলেন সঞ্জয়। বাড়ি থেকে তাঁকে শোয়ার গদি, বালিশ, পাখা, টয়লেটের প্রয়োজনীয় সামগ্রী ও মশার ওষুধ নিয়ে যাওয়ার অনুমতি দিয়েছে জেল কর্তৃপক্ষ। এছাড়াও বাড়ি থেকে ওষুধ ও মাঝেমধ্যে জেলে বসে বাড়ির খাবারও খেতে পারবেন সঞ্জয়।
নিজের প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ছা়ডাও ভগবত গীতা ও হনুমান চলিশাও সঙ্গে রাখতে পারবেন সঞ্জয়। তবে অন্যান্য কয়েদিদের সঙ্গেই তাঁকে থাকতে হবে জেলের ১০ ফুট বাই ১৫ ফুট কুঠুরিতেই। মেনে চলতে হবে জেলের সমস্ত নিয়ামকানুনও। সশ্রম কারাদণ্ডে মিলবে দৈনিক মজুরিও।
সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী বৃহস্পতিবারই দুপুরে মুম্বইয়ের বিশেষ টাডা আদালতে আত্মসমর্পণ করেন সঞ্জয়। টানা ৬ ঘণ্টা ধরে আত্মসমর্পণ প্রক্রিয়া চলার পর রাতে তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় আর্থার রোড জেলে। আগামী ৪২ মাস গরাদের পিছনেই ঠিকানা মুন্নাভাইয়ের।