নগরপালের বাড়ির সামনে গুলি, মৃত্যু-ঠিক কী হয়েছিল! এক্সক্লুসিভ রিপোর্ট

নগরপালের বাড়ির সামনে গুলি, মৃত্যু-ঠিক কী হয়েছিল! এক্সক্লুসিভ রিপোর্ট

নগরপালের বাড়ির সামনে গুলি, মৃত্যু-ঠিক কী হয়েছিল! এক্সক্লুসিভ রিপোর্টশর্ট স্ট্রিটের মত একটি সম্ভ্রান্ত এলাকার স্কুলে  চলল গুলি। নিহত হলেন দুজন। কীভাবে হয়েছিল অপারেশনের ছক ? আত্মরক্ষায় কীভাবে পাল্টা প্রস্তুতি নিয়েছিলেন স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা ? কী হয়েছিল আজ ভোর রাতে নাইন এ শর্ট স্ট্রিটে থাকল চব্বিশ ঘণ্টার এক্সক্লুসিভ রিপোর্ট।
 
প্রায় একমাস আগেই পরিকল্পনা হয়েছিল। রবিবার সন্ধ্যায় তাই বারুইপুর আদালতের আইনজীবী পার্থ চ্যাটার্জি ও কয়েকজন এসে রেইকি করেও গিয়েছিলেন। সেই মতো নিরাপত্তা সংস্থার সঙ্গে কথা বলে ১৮ জনকে নিয়োগ করা হয়েছিল। যারমধ্যে ছিল ১০জন বাউন্সার, চারজন পুরুষ ও চারজন মহিলা নিরাপত্তারক্ষী। আনা হয়েছিল একজন ফটোগ্রাফারও। তাঁদের বলা হয়েছিল জমি সংক্রান্ত সমস্যার জন্য নিয়ে যাওয়া হচ্ছে এই টিমকে। প্রয়োজনে পেশিশক্তির ব্যবহার করতে হতে পারে।  
 
প্রত্যেকের বাড়িতে গাড়ি পাঠানো হয় রাত এগারোটা নাগাদ। বাঘাযতীনের একটি হোটেলে এঁদের খাওয়া ও থাকার ব্যবস্থা হয়েছিল। ভোর সাড়ে তিনটে নাগাদ  তিনটি  গাড়িতে দিকে রওনা হয় গোটা টিম।  ঘটনাস্থলে পৌঁছে পনেরো মিনিট ধরে রেইকি করা হয়। 

ভোর চারটে কুড়ি। শুরু হয় অপারেশন। কিন্তু অন্যপক্ষ  প্রস্তুত থাকায় ভেস্তে যায় অপারেশনের ছক। আচমকা গুলিতে হতচকিত হয়ে পড়ে গোটা দল। স্কুলেরই একটি ঘরে আশ্রয় নেন তারা। অভিযোগ, এই সময় কাচের জানলা ভেঙে ভিতরে গুলি চাসানো হয় বলে দাবি করেছেন জখম বাউন্সার জয়ন্ত সাহা।
 
 এই বাউন্সার আর নিরাপত্তা কর্মীদের বিরুদ্ধে পুলিস ১৪৩, ১৪৯, ৪৫৮ ও ১২০- বি ধারায় মামলা রুজু করেছে। ইতিমধ্যে হামলাকারী হিসাবে আইনজীবী পার্থ চ্যাটার্জি ও তিনজন মহিলা নিরাপত্তারক্ষীসহ মোট নজনকে গ্রেফতারও করেছে পুলিস।

First Published: Monday, November 11, 2013, 20:09


comments powered by Disqus