কৃত্রিম কর্নিয়া তৈরি করে চিকিৎসা বিজ্ঞানে অনন্য নজির চিনের

Last Updated: Friday, October 18, 2013 - 11:21

চোখের চিকিত্‍সায় এক অনন্য নজির গড়তে চলেছে চিন। কর্নিয়া প্রতিস্থাপনের হাসপাতালে ভিড় করেন অসংখ্য মানুষ। কিন্তু ওই জটিল অস্ত্রোপচার নির্ভর করে দাতার উপরে। কর্নিয়ার বিকল্পের খোঁজে বহু বছর ধরে গবেষণা করছিলেন চিনের ফোর্থ মিলিটারি মেডিক্যাল ইউনিভার্সিটির বিজ্ঞানীরা। তাঁরা তৈরি করেছেন কৃত্রিম কর্নিয়া।
মানুষের দৃষ্টিশক্তির ক্ষেত্রে কর্নিয়ার ভূমিকাই আসল। কর্নিয়ার ক্ষতি বা দীর্ঘমেয়াদী অসুখ থেকে অন্ধত্বও হতে পারে। বিশ্বজুড়ে যত দৃষ্টিহীন মানুষ রয়েছেন, তাদের এক চতুর্থাংশ কেরাটোনোসাসে ভোগেন। কর্নিয়ার সমস্যাকেই কেরাটোনোসাস বলে। তাঁদের একমাত্র আশা কেরাটোপ্লাস্টি বা কর্নিয়া প্রতিস্থাপন। কিন্তু কর্নিয়া ট্র্যান্সপ্ল্যান্ট প্রাথমিকভাবে নির্ভর করে দাতার উপরে। দ্বিতীয়ত ওই অস্ত্রোপচার অত্যন্ত জটিল এবং ব্যয়সাধ্য। এই সমস্যার উত্তর খুঁজতে বহু বছর ধরে গবেষণা চালিয়েছে চিনের ফোর্থ মিলিটারি মেডিক্যাল ইউনিভার্সিটির বিজ্ঞানীরা। তাঁরা তৈরি করেছেন কৃত্রিম কর্নিয়া ।
 
আমরা লক্ষ্য করেছি যে কৃত্রিম কর্নিয়া মানুষের চোখে ভালভাবেই কাজ করছে। ৭০% রোগী তাতে উপকৃত হয়েছে। তাছাড়া আমাদের তৈরি কর্নিয়ার কোনও সাইড এফেক্ট নেই। কোনও খারাপ প্রভাবের অভিযোগ এখনও পাইনি আমরা।
 
শূকরজাতীয় প্রাণী থেকে কৃত্রিম কর্নিয়া সৃষ্টির পরিকল্পনা ছিল চিনের বিজ্ঞানীদের। কিন্তু তা মানুষের চোখের উপযোগী করার পথে বিস্তর অসুবিধা ছিল। অন্য প্রাণীর কর্নিয়া থেকে একাধিক কোষ বাদ দিতে হতো বিজ্ঞানীদের। আবার কর্নিয়ার কিছু আবশ্যক তন্তু বজায় রাখতে হবে। প্রায় দশ বছরের চেষ্টায় এই জোড়া সমস্যার সমাধান করেছেন জিন ইয়ান নামে এক চিনা অধ্যাপক। কয়েকটি রাসায়নিক যৌগের সাহায্যে তিনি কৃত্রিম কর্নিয়া থেকে বাদ দিয়েছেন প্রাণীর কোষ। চিনের প্রথম সারির কয়েকটি হাসপাতাল মানুষের চোখে কৃত্রিম কর্নিয়া প্রতিস্থাপনের কাজ শুরু করে দিয়েছে। কর্নিয়া ট্র্যান্সপ্ল্যান্টে উপকৃত হয়েছেন শতাধিক রোগী।
 



First Published: Friday, October 18, 2013 - 11:21


comments powered by Disqus