শ্রীসন্থকে ধোনি এবং হরভজন ফাঁসিয়েছে বলে দাবি বাবার

Last Updated: Thursday, May 16, 2013 - 09:33

আইপিএলে স্পট ফিক্সিংয়ের অভিযোগে গ্রেফতার শ্রীসন্থ অভিযোগে গ্রেফতার করা হল ভারতীয় পেসার শ্রীসন্থকে। শ্রীসন্থ ছাড়াও গ্রেফতার হয়েছেন অঙ্কিত চহ্বান ও অজিত চান্দিলা। এই তিন জনই এবারের আইপিএলে রাজস্থান রয়্যালসের হয়ে খেলছেন। আজ সকালে দিল্লি পুলিস গ্রেফতার করেছে এই তিনজনকে। তিন ক্রিকেটারের সঙ্গেই গ্রেফতার করা হয়েছে সাতজন বুকিকেও।

পড়ুন এই খবরে এখন ঠিক কী ঘটছে

এদের মধ্যে তিনজন দিল্লির। পুলিসের অনুমান এর পিছনে বড় কোনও চক্র কাজ করেছে। শ্রীসন্থকে সাসপেন্ড করা হয়েছে বিসিসিআইয়ের তরফ থেকে। অভিযোগ প্রমাণিত হলে আজিবন নির্বাসন করা হতে পারে তাঁকে।
অন্যদিকে, শ্রীসন্থের গ্রেফতার হওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই একটি মালায়ালাম দৈনিকে বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন তাঁর বাবা। তাঁর ছেলেকে ফাঁসানো হয়েছে বলে অভিযোগ করলেন তিনি।
শ্রীসন্থকে ফাঁসানোর পিছনে মহেন্দ্র সিং ধোনি ও হরভজন সিংয়ের হাত রয়েছে বলে দাবি তাঁর।
পুলিসের নজরে আরও বিদেশি ক্রিকেটার। দিল্লি পুলিসের তরফ থেকে জানানো হয়েছে সমস্ত ঘটনায় আন্ডার ওয়ার্ল্ডের যোগাযোগের সম্ভাবনা প্রবল।
প্লেয়ারদের ফোন ট্যাপ করে স্পট ফিক্সিংয়ের তথ্য পেয়েছে পুলিস। সূত্রে খবর, ফোন এসেছিল দুবাই থেকে। ধৃত তিন ক্রিকেটারকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিস। এই তিনজনের বিরুদ্ধে ১২০ ও ৪২০ ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।
বেশ কিছুদিন ধরে ভারতীয় দলে অনিয়মিত কেরালার পেসার শ্রীসন্থ। বিশ্বকাপজয়ী ভারতীয় দলের এই সদস্য অক্রিকেটীয় বিষয়কে ঘিরে তিনি অনেক বেশি খবরে এসেছেন বারবার। কিছুদিন আগেই সোশাল নেটওয়ার্কিং সাইটে 'স্ল্যাপ-গেট' বিতর্ক নিয়ে ফের একবার নিজের হতাশা জাহির করে সংবাদ শিরোনামে এসেছিলেন তিনি।
সূত্রে খবর, গতকালের মুম্বইয়ের সঙ্গে রাজস্থানের ম্যাচেও গড়াপেটা হয়েছিল। এই ঘটনায় আরও চার ক্রিকেটারের জড়িয়ে থাকার আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে পুলিসের পক্ষ থেকে। তাড়াতাড়ি এদেরও গ্রেফতার করা হতে পারে বলে খবর। এর প্রত্যকেই রাজস্থানেরই প্লেয়ার।
রাজস্থান রয়্যালস কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন গোটা ঘটনায় তাঁরা হতবাক। এখনও তাঁরা এই বিষয়টি নিয়ে কিছু জানেন না বলে দাবি করেছেন। তবে তদন্তে সম্পূর্ণ সহযোগিতার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে শিল্পা শেঠিত দলের পক্ষ থেকে।
একই দলের সাতজন ম্যাচ গড়াপেটায় জড়িয়ে পড়ায় নিয়ম অনুযায়ী চলতি আইপিএলে অনিশ্চিত হয়ে গেল রাহুল দ্রাবিড়দের ভবিষ্যৎ। অভিযোগ প্রমাণিত হলে আইপিএল থেকে নির্বাসিত করা হতে পারে রাজস্থানকে। একই সঙ্গে অনিশ্চিত হয়ে গেল আইপিএলের ভবিষ্যতও। তবে ব্যবসায়িক স্বার্থে হয়ত চলবে আইপিএল। এর আগেও বহু বিতর্কে কলঙ্কিত হয়েছে আইপিএল। এই বিনোদনী ক্রিকেটে ক্রিকেটের ভূমিকা ঠিক কতখানি তা নিয়েও রয়েছে বিতর্ক। কিন্তু আজকের ঘটনায় এই আইপিএলের বিশ্বাসযোগ্যতার উপরেই বড় প্রশ্নচিহ্ন পড়ে গেল।
প্রসঙ্গত, ২০১২ সালে একটি বেসরকারি চ্যানেলের স্টিং অপরেশনের ভিত্তিতে গ্রেফতার হয়েছিলেন চার আইপিএল ক্রিকেটারকে। গত বছর আইপিএলে মাদক কাণ্ডের জেরে ধরা পড়েন আরও ২ ক্রিকেটার।



First Published: Thursday, May 16, 2013 - 14:54


comments powered by Disqus