আগাম সতর্কতা, তাও ভাসল তিলোত্তমা, রেকর্ড বৃষ্টি আর জোয়ারকেই ভিলেন বানালেন 'জল' শোভন আগাম সতর্কতা, তাও ভাসল তিলোত্তমা, রেকর্ড বৃষ্টি আর জোয়ারকেই ভিলেন বানালেন 'জল' শোভন

দুদিন আগেই ভরা বিপর্যয়ের সতর্কতা ছিল। ছিল ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাসও। তাতেও কোনও কাজ হয়নি। ফের জলবন্দি শহর। প্রশ্ন উঠছে বিপদের গন্ধ পেয়েও কেন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে ব্যর্থ কলকাতা পুরসভা?যদিও রেকর্ড বৃষ্টি আর ভরা গঙ্গাকেই ভিলেন বানিয়েছেন মেয়র।আগাম সতর্কতা ছিল। তাতেও কাজ হয়নি। নিটফল জিরো। শুক্রবার রাত থেকে ম্যারাথন বৃষ্টিতে  জলমগ্ন গলি থেকে রাজপথ। এপাড়া ওপাড়ার ঘরদোর থেকে শুরু করে এমনকী  নামীদামি আবাসনও জলে থইথই। বেলা গড়াতে বৃষ্টি ধরলেও জমা জলের যন্ত্রণায় নাকাল মানুষ। ভরা বিপর্যয়ের গন্ধ আগেই ছিল পুরসভার কাছে। তারপরেও কেন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া গেল না? রেকর্ড বৃষ্টি আর গঙ্গার জোয়ারকেই ঢাল করেছেন মেয়র।

রাতভর বৃষ্টিতে উত্তর থেকে দক্ষিণ হাঁটু জলে কলকাতা  রাতভর বৃষ্টিতে উত্তর থেকে দক্ষিণ হাঁটু জলে কলকাতা

রাতভর বৃষ্টি। আর এই প্রবল বর্ষণে বদলাল না কলকাতার চেনা জলছবি। রাত থেকে কলকাতার বিভিন্ন জায়গায় জল জমতে শুরু করেছে। সকাল হতেই উত্তর থেকে দক্ষিণ সর্বত্র জল দাঁড়িয়ে গিয়েছে। জলের চেনা ছবি এমজি রোড, মুক্তারাম বাবু স্ট্রিট, কলেজ স্ট্রিট, আমহার্স্ট স্ট্রিট, ঠনঠনিয়া এলাকায়। এছাড়াও হাঁটুর ওপর পর্যন্ত জল ক্যামাক স্ট্রিট ক্রসিং, এজেসি বোস রোড ক্রসিং, থিয়েটার রোড, রাসেল স্ট্রিট, হসপিটাল রোড, চৌরঙ্গি রোড ক্রসিং থেকে সাডার স্ট্রিট ক্রসিং, রাধাবাজার স্ট্রিট, পোলক স্ট্রিটে। কাঁকুড়গাছি ও উল্টাডাঙা আন্ডারপাস, বিধানসরণি, এজেসি বোস রোডের একাংশ, কংগ্রেস এগজিবিশন রোড, পার্ক সার্কাস সেভেন পয়েন্ট, সি জি আর রোড সহ একাধিক এলাকায় হাঁটু পর্যন্ত জল দাড়িয়ে গিয়েছে।