সারদাকাণ্ড: প্রতিশ্রুতিই সার, আমানতকারীরা টাকা ফেরত পাওয়ার আগেই লুপ্ত হতে পারে শ্যামল সেন কমিশন সারদাকাণ্ড: প্রতিশ্রুতিই সার, আমানতকারীরা টাকা ফেরত পাওয়ার আগেই লুপ্ত হতে পারে শ্যামল সেন কমিশন

প্রতিশ্রুতি ছিল অনেক, যদিও শেষপর্যন্ত সে সব অধরাই থেকে যেতে পারে। সারদার আমানতকারীরা অর্থ ফেরত পাওয়ার আগেই গুটিয়ে নেওয়া হতে পারে শ্যামল সেন কমিশন। কারণ আগামিকালই কমিশনের মেয়াদের শেষ দিন। মুখ্যমন্ত্রীর তরফে সবুজ সংকেত না পেলে কমিশনের মেয়াদ বাড়ানোর কোনও সম্ভাবনা নেই। কাজ শেষের আগেই শ্যামল সেন কমিশন বন্ধ হয়ে যাওয়ার আশঙ্কায় পথে নামছে বিরোধীরা।গতবছর সারদা কেলেঙ্কারি প্রকাশ্যে আসার পর চব্বিশে এপ্রিল শ্যামল সেন কমিশন গড়ে দেয় রাজ্যসরকার। উদ্দেশ্য ছিল কুড়িহাজার টাকা পর্যন্ত যাঁরা সারদায় আমানত করেছেন তাঁদের টাকা ফেরত্ দেওয়া।পাশাপাশি যারা এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত তাঁদের বিরুদ্ধে রিপোর্ট দেওয়া। ঠিক ছিল দুহাজার তেরোর অক্টোবরেই কমিশন তাদের কাজ শেষ করবে। কিন্তু কাজ শেষ না হওয়ার এবছর বাইশে অক্টোবর পর্যন্ত কমিশনের মেয়াদ বাড়িয়ে দেওয়া হয়। এবারে মেয়াদ ফুরনোর দিন চলে এলেও তা বাড়ানোর কোনও ইঙ্গিত আসেনি সরকারের তরফে।

ছাত্র বিক্ষোভের মুখে পড়ে পুলিসে প্রহরায় বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়লেন যাদবপুরের উপাচার্য ছাত্র বিক্ষোভের মুখে পড়ে পুলিসে প্রহরায় বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়লেন যাদবপুরের উপাচার্য

নজিরবিহীনভাবে ছাত্র বিক্ষোভের মুখে পড়ে বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়তে পারলেন না যাদবপুরের উপাচার্য অভিজিত্ চক্রবর্তী। কেন তিনি পদত্যাগ করছেন না সরাসরি এই প্রশ্নের মুখে পড়তে হল তাঁকে।পরে অবশ্য পুলিসের সাহায্যে বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়লেন উপাচার্য।  দুপুরেই অচলাবস্থা কাটার ইঙ্গিত এসেছিল ছাত্রদের থেকে। বয়কট ছেড়ে ক্লাসে যোগ দিয়েছিলেন ছাত্ররা। বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিস্থিতিও ছিল অনেকটাই শান্ত। বিক্ষোভও হয়নি। সওয়া পাঁচটা নাগাদ উপাচার্য বেরোচ্ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। সেসময়ই হঠাত্ কয়েকজন ছাত্রছাত্রী গেটের বাইরে বিক্ষোভ দেখায়। উপাচার্যের দিকে ছুঁড়ে দেয় একের পর এক প্রশ্ন

যাদবপুর কাণ্ড: বয়কট ছেড়ে ক্লাসে ফিরলেও পড়ুয়ারা সাড়া দেবেন না রোল কলে যাদবপুর কাণ্ড: বয়কট ছেড়ে ক্লাসে ফিরলেও পড়ুয়ারা সাড়া দেবেন না রোল কলে

আর বয়কট নয়। এবার  ক্লাসে ফিরছেন যাদবপুরের ছাত্রছাত্রীরা। তবে, ক্লাস করলেও রোল কলে সাড়া দেবেন না তাঁরা। ছাত্রছাত্রীদের এই সিদ্ধান্তে বিশ্ববিদ্যালয়ে অচলাবস্থা কিছুটা হলেও কাটবে বলে মনে করছে শিক্ষামহল। ছাত্রছাত্রীরা কিছুটা নরম হলেও, পুরনো অবস্থানে অনড় অধ্যাপক সংগঠন জুটা। উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে আজ নজিরবিহীনভাবে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করলেন যাদবপুরের অধিকাংশ অধ্যাপক।  আর্টসের ছাত্রছাত্রীরা ক্লাস করছিলেন গাছতলায়। সায়েন্সের পড়ুয়ারা ক্লাসে থাকলেও সাড়া দিচ্ছিলেন না রোল কলে। এবার সেই পথেই যাদবপুরের বাকি ছাত্রছাত্রীরাও। ক্লাস বকটের সিদ্ধান্ত থেকে শেষ পর্যন্ত সরে এলেন আন্দোলনকারীরা। তবে, ক্লাসে ফিরলেও  হাজিরা দেবেন না তাঁরা। অথার্ত সাড়া দেবেন না রোল কলে।  তবে  উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে তাঁরা অনড় বলেই জানিয়েছেন ছাত্রছাত্রীরা।