জোট ছাড়াও ইতিমধ্যেই প্ল্যান বিও ছকে ফেলেছেন রাজ্য সিপিএমের শীর্ষনেতারা জোট ছাড়াও ইতিমধ্যেই প্ল্যান বিও ছকে ফেলেছেন রাজ্য সিপিএমের শীর্ষনেতারা

দোরগোড়ায় বিধানসভা নির্বাচন। দিল্লিতে জোরদার জোট তত্পরতা। বামসঙ্গ চেয়ে দরবার প্রদেশ নেতৃত্বের। বল এখন সোনিয়া গান্ধীর কোর্টে। তবে শুধুই কংগ্রেস নয় রাজ্যের বাম শিবিরের নজরও এখন দশ জনপথেই। তবে শুধুই জোটের ওপর ভরসা করে দুহাজার ষোলোর শক্তিপরীক্ষায় নামতে নারাজ  বামেরা। প্ল্যান এ বাম-কংগ্রেস জোট হলেও ইতিমধ্যেই প্ল্যান বিও ছকে ফেলেছেন রাজ্য সিপিএমের শীর্ষনেতারা।  কীরকম সেই প্ল্যান বি? অ্যাকশন প্ল্যানের নিরিখে বাছাই করা কেন্দ্রগুলিকে ভাগ করা হয়েছে তিনটি পর্যায়ে। কলকাতা বিধানসভার এগারোটি কেন্দ্রকে ভাগ করা হয়েছে সন্ত্রাস এবং  সাংগঠনিক শক্তির ভিত্তিতে। তৃতীয় পর্যায়ে রাখা হয়েছে এমন কেন্দ্রগুলিকে যেখানে সন্ত্রাসের আশঙ্কার পাশাপাশিই দুর্বল বামেদের সাংগঠনিক শক্তিও। এবং সেই নিরিখেই ইতিমধ্যেই ঠিক হয়ে গেছে কে কে হবেন সেনাপতি। কে কে হচ্ছেন ভোট যুদ্ধে সেনাপতি।চলুন একনজরে দেখে নেওয়া যাক:

বিজেপির পদযাত্রা ঘিরে আজও উত্তেজনা বিজেপির পদযাত্রা ঘিরে আজও উত্তেজনা

বিজেপির পদযাত্রা ঘিরে আজও উত্তেজনা। মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির সামনে দিয়ে পদযাত্রা যাওয়ার কথা থাকলেও, আজ শেষ মুহুর্তে  রুট বদলে দেওয়া হয়। বিজেপির দাবি, পুলিস তাদের মৌখিকভাবে জানায়, মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির সামনে দিয়ে মিছিল যাবে না। বলা হয়, এতে নিরাপত্তা বিঘ্নিত হতে পারে। এর জেরে রুট বদলে দিতে হয় মিছিলের। অভিযোগ উঠেছে রাজনৈতিক পক্ষপাতিত্বের। বিজেপি নেত্রী রূপা গাঙ্গুলির বক্তব্য, পদযাত্রা চলবেই। একে কেউ রুখতে পারবে না। গতকাল মিছিল ঘিরে গণ্ডগোলের পর, আজ গোটা পদযাত্রার ভিডিও রেকর্ডিং করা হয় পুলিস-প্রশাসনের তরফে। গান্ধীমূর্তি থেকে বেহালা শীলতলা পর্যন্ত পদযাত্রা হয়।