কার দিকে থাকবে টেবল ফ্যানের মুখ? বচসায় সহকর্মীর হাতে খুন শ্রমিক কার দিকে থাকবে টেবল ফ্যানের মুখ? বচসায় সহকর্মীর হাতে খুন শ্রমিক

ঘুমনোর সময় টেবল ফ্যানের মুখ কার দিকে ঘোরানো থাকবে?সেই বচসায় সহকর্মীর হাতে খুন হয়ে গেলেন এক শ্রমিক। ঘটনা আনন্দপুরের।  মার্টিনপাড়া এলাকার একটি কারখানার দুই শ্রমিক মহম্মদ সরফুদ্দিন ও মহম্মদ শাহরুখ। রাতে কারখানাতেই পাশাপাশি শুতেন দুজনে। সহকর্মীরা জানিয়েছেন, টেবল ফ্যানের মালিকানা নিয়ে বেশ কয়েকদিন ধরেই দুজনের বচসা চলছিল। শনিবার রাতে ভারী কিছু দিয়ে সরফুদ্দিনের মাথা থেঁতলে দেয় শাহরুখ। তারপর কারখানায় রাখা কাপড়েই দেহ ভালভাবে মুড়ে পালিয়ে যায় সে। গোটা ঘটনাটি ধরা পড়েছে কারখানার CCTV ক্যামেরায়। শাহরুখের খোঁজে তল্লাসি শুরু করেছেন আনন্দপুর থানার পুলিস। তদন্তে কলকাতা পুলিসের হোমিসাইড শাখাও। 

এক বছরের মধ্যে রাজ্যে তথ্য প্রযুক্তি ক্ষেত্রে নয়া ৫০ হাজার কর্মসংস্থান, দাবি অমিত মিত্রর এক বছরের মধ্যে রাজ্যে তথ্য প্রযুক্তি ক্ষেত্রে নয়া ৫০ হাজার কর্মসংস্থান, দাবি অমিত মিত্রর

রাজ্যের তথ্য প্রযুক্তির ক্ষেত্রে এক বছরের মধ্যে পঞ্চাশ হাজার নতুন চাকরি হবে ।  দাবি অমিত মিত্রের। শুক্রবার ন্যাসকমের এক অনুষ্ঠানে রাজ্যের অর্থমন্ত্রী বলেন, উইপ্রো,কগনিজেন্ট, টিসিএসের মতো বড়সড় তথ্য প্রযুক্তি সংস্থা তাদের ব্যবসার প্রসার ঘটাচ্ছে এরাজ্যে।তথ্য প্রযুক্তি ক্ষেত্রে কয়েক বছরের খরা কাটিয়ে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে ভারত। যার প্রভাব পড়ছে এরাজ্যেও। কয়েক বছর ধরেই সল্টলেকের সেক্টর  ফাইভে একের পর এক ছোটো সংস্থা বন্ধ হয়ে গেছে। বড় সংস্থাগুলিও তাদের প্রসার ঘটায় নি। এরাজ্যে বিনিয়োগ করবে বলেও পিছিয়ে গেছে টিসিএস, উইপ্রোর মতো তথ্য প্রযুক্তি সংস্থা। তবে, রাজ্যের শিল্প তথা তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রী অমিত মিত্রের দাবি, পরিস্থিতির অনেকটাই বদল হয়েছে। উইপ্রো, কগনিজেন্ট, টিসিএসের মতো সংস্থা তাদের ব্যবসার সম্প্রসারণ করছে এরাজ্যে।