শোভন-বিতর্কে আসরে নামলেন অধীর

Last Updated: Monday, December 10, 2012 - 23:01

শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় বিতর্কে এবার আসরে নামল কংগ্রেস। কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী অধীর রঞ্জন চৌধুরী জানিয়ে দিলেন, শোভনদেববাবুর জন্য কংগ্রেসের দরজা খোলা।  এই পরিস্থিতিতে শোভনদেব নিগ্রহকাণ্ডে মূল অভিযুক্ত মন্মথ বিশ্বাসের নেতৃত্বে আইএনটিইউসি কর্মীদের তৃণমূলের শিক্ষাবন্ধু সমিতিতে যোগদানের ঘোষণা আজ স্থগিত রাখা হয়। শোভনদেবের সঙ্গে চূড়ান্ত সংঘাত এড়াতেই তৃণমূলের এই সিদ্ধান্ত, ধারণা রাজনৈতিক মহলের।
মুর্শিদাবাদ কংগ্রেসে ভাঙন ধরাতে অধীর ঘনিষ্ঠ হুমায়ূন কবীরকে দলে টেনে মন্ত্রী করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার পাল্টা হিসেবে তৃণমূল কংগ্রেসের বিদ্রোহী নেতা শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়ের পাশে দাঁড়ালেন অধীররঞ্জন চৌধুরী।
তৃণমূলে বিদ্রোহ-বিক্ষোভের সুযোগ নিতে কংগ্রেস যে তত্‍পর, অধীর চৌধুরীর বক্তব্যেই তা স্পষ্ট। এই পরিস্থিতিতে তৃণমূল নেতৃত্ব কিন্তু যথেষ্টই সতর্ক। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়কে নিগ্রহকাণ্ডে মূল অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা মন্মথ বিশ্বাসের নেতৃত্বে প্রায় দেড়শজন আইএনটিইউসি সমর্থক যোগ দেবেন তৃণমূলের শিক্ষাবন্ধু সমিতিতে, রবিবারই এই সিদ্ধান্ত হয়।  
শিক্ষাবন্ধু সমিতিতে নিয়ন্ত্রণ রয়েছে আইএনটিটিইউসিতে শোভনদেবের পাল্টা গোষ্ঠীর নেতা দোলা সেনের। মন্মথ বিশ্বাসের নেতৃত্বে আইএনটিইউসি কর্মীদের যোগদানের বিষয়টি আনুষ্ঠানিক ভাবে ঘোষণার জন্য  সোমবার তৃণমূল ভবনে হাজির থাকার কথা ছিল মুকুল রায়ের। কিন্তু শেষ মুহুর্তে তা স্থগিত রাখা হয়।  রাজনৈতিক মহলের ধারণা, নিগ্রহকাণ্ডে মূল অভিযুক্তকে মঞ্চে আনলে মন্মথ বিশ্বাসের ওপরেই দলের আস্থা রয়েছে, এই বার্তা যেত শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়ের কাছে। এতে  তাঁকে আরও এক ধাপ ঠেলে দেওয়া হত দলত্যাগের সিদ্ধান্তের দিকে। এই পরিণতির কথা মাথায় রেখেই এখনই শোভনদেবকে চরম বার্তা দিতে নারাজ তৃণমূল নেতৃত্ব। এর জেরে একদিকে যেমন শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে সংঘাত চূড়ান্ত বিন্দুতে নিয়ে যাওয়া থেকে পিছিয়ে এল তৃণমূল, অন্যদিকে তেমনি সামান্য হলেও খোলা রাখা হল সমঝোতার রাস্তা।



First Published: Monday, December 10, 2012 - 23:01


comments powered by Disqus