সরকার ভোট পিছিয়ে দিতে চাইছে, অভিযোগ বিমানের

পঞ্চায়েত  জট নিয়ে ততপরতা রাজনৈতিক শিবিরেও। আজ সরকারের বিরুদ্ধে রণকৌশল ঠিক করতে জরুরি বৈঠকে বসছে বামফ্রন্ট।  রাজনৈতিক মহলের ধারনা, পঞ্চায়েত ভোট বিতর্ক শেষ পর্যন্ত আদালতেই গড়াবে।

Updated: Apr 1, 2013, 10:23 AM IST

পঞ্চায়েত ভোট সময়ে না হওয়ার জন্য রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তুললেন সিপিআইএম রাজ্য সম্পাদক বিমান বসু। তাঁর অভিযোগ, পঞ্চায়েত ভোট পিছিয়ে দিতে সুপরিকল্পিতভাবে রাজ্য নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে সংঘাতে গেছে সরকার।  
সময়ে পঞ্চায়েত ভোট না হওয়ায়, রাজ্যবাসী ক্ষতির মুখে পড়বেন বলে জানালেন সিপিআইএম রাজ্য সম্পাদক বিমান বসু। তিনি বলেন, পঞ্চায়েতগুলির মেয়াদ ফুরোলে প্রশাসক নিয়োগ করবে রাজ্য সরকার। কিন্তু, বহু কেন্দ্রীয় প্রকল্প শুধুমাত্র পঞ্চায়েতের মাধ্যমেই বাস্তবায়িত করা হয়। পঞ্চায়েত না থাকলে সেইসব প্রকল্পের সুবিধা থেকে বঞ্চিত হবেন রাজ্যবাসী।
পঞ্চায়েত  জট নিয়ে ততপরতা রাজনৈতিক শিবিরেও। আজ সরকারের বিরুদ্ধে রণকৌশল ঠিক করতে জরুরি বৈঠকে বসে বামফ্রন্ট। এতদিন পর্যন্ত সরকার ও রাজ্য নির্বাচন কমিশনের দ্বন্দ্ব নিয়ে সে ভাবে সুর চড়ায়নি বামফ্রন্ট। কারণ বামফ্রন্ট চেয়েছিল দু'পক্ষের সংঘাত মিটে গিয়ে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে ভোট হোক। কিন্তু আদালত পর্যন্ত বিষয়টি গড়ালে সরকারের বিরুদ্ধে প্রচারের রণকৌশল কী হবে তা ঠিক করতেই বামফ্রন্টের এই জরুরি বৈঠক।
বৈঠকের শেষে বিকেল চারটেয় বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসুর নেতৃত্বে রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করবে বাম প্রতিনিধি দল। সেখানেই রাজ্যপালের কাছে অবাধ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের দাবি জানানো হবে বাম প্রতিনিধি দলের তরফে। এতদিন পর্যন্ত সরকার ও রাজ্য নির্বাচন কমিশনের দ্বন্দ্ব নিয়ে সেভাবে সুর চড়ায়নি বামফ্রন্ট। কারণ বামফ্রন্ট চেয়েছিল দুপক্ষের সংঘাত মিটে গিয়ে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে  ভোট হোক।