পার্কসার্কাসে যাত্রীকে ব্লেড দিয়ে ক্ষতবিক্ষত করল অটোচালক

ফের অটো চালকের দৌরাত্ম্য কলকাতায়। পার্কসার্কাসে খুচরো নিয়ে বচসায় যাত্রীকে ব্লেড দিয়ে ক্ষতবিক্ষত করে দিল অটোচালক। পুলিসে অভিযোগ জানাতে গিয়েও নাজেহাল হতে হয়েছে ওই যাত্রীকে। এক থানা থেকে আরেক থানায় ঘুরতে হয় তাঁকে। নিজের উদ্যোগে ডাক্তারি পরীক্ষাও করাতে হয়। পুলিসি নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগে থানা ঘেরাও করেন বাসিন্দারা।  সোমবার সকাল ১১টা। তোপসিয়া থেকে অটোতে ওঠেন ছোট্টু খান। পার্কসার্কাস  চার নম্বর ব্রিজের কাছে অটো থেকে নামার পরই খুচরো নিয়ে চালকের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন তিনি। বচসারে যে এই সাজা হবে বুঝতে পারেননি ছোট্টু। অটোচালক  তাঁর মুখ ও গলায় ব্লেড চালিয়ে দেয়।   

Updated: Sep 9, 2013, 09:00 PM IST

ফের অটো চালকের দৌরাত্ম্য কলকাতায়। পার্কসার্কাসে খুচরো নিয়ে বচসায় যাত্রীকে ব্লেড দিয়ে ক্ষতবিক্ষত করে দিল অটোচালক। পুলিসে অভিযোগ জানাতে গিয়েও নাজেহাল হতে হয়েছে ওই যাত্রীকে। এক থানা থেকে আরেক থানায় ঘুরতে হয় তাঁকে। নিজের উদ্যোগে ডাক্তারি পরীক্ষাও করাতে হয়। পুলিসি নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগে থানা ঘেরাও করেন বাসিন্দারা।  সোমবার সকাল ১১টা। তোপসিয়া থেকে অটোতে ওঠেন ছোট্টু খান। পার্কসার্কাস  চার নম্বর ব্রিজের কাছে অটো থেকে নামার পরই খুচরো নিয়ে চালকের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন তিনি। বচসারে যে এই সাজা হবে বুঝতে পারেননি ছোট্টু। অটোচালক  তাঁর মুখ ও গলায় ব্লেড চালিয়ে দেয়।   
ঘটনার পরে ওই যাত্রী তপসিয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করতে গিয়েও রেহাই মেলেনি। তাঁকে কড়েয়া থানায় গিয়ে অভিযোগ জানানোর পরামর্শ দেওয়া হয়। কড়েয়া থানার পুলিস তাকে মেডিক্যাল টেস্ট করিয়ে আসতে বলে। অভিযোগ মেডিক্যাল টেস্ট করিয়ে আসার পরেও দীর্ঘক্ষণ থানায় বসিয়ে রাখা হয় জখম ওই যাত্রীকে। প্রতিবাদে থানা অবরোধ করেন স্থানীয় মানুষ।
 
ঘটনায় দোষীদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন পরিবহনমন্ত্রী মদন মিত্র।
 
সোমবারই শহর জুড়ে তল্লাশি চালিয়ে অটো চুরি চক্রের মূল পাণ্ডা সহ ১০ জনকে গ্রেফতার করেছে কলকাতা পুলিসের গোয়েন্দা বিভাগ। রাজ্যের বিভিন্ন জায়গা থেকে অটো চুরি করত অভিযুক্তরা। এরপর ভুয়ো নম্বর প্লেট ও কাগজ পত্র তৈরি করে অটোগুলি চালানো হত মূলত নিউ টাউন থেকে হাজরাতলা পর্যন্ত। অভিযান চালিয়ে মোট ১৩টি আটো বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিস।
 
পুলিস জানিয়েছে, ধৃতদের মধ্যে বেশ কয়েকজনের বিরুদ্ধে পুরনো অপরাধের রেকর্ড রয়েছে। ঘটনায় আরও কোনও ব্যক্তি জড়িত কিনা সেবিষয়ে খোঁজ খবর নিচ্ছে পুলিস।