নিরাপত্তা প্রশ্নে ফের সংঘাতে রাজ্য-কমিশন

Last Updated: Monday, June 3, 2013 - 08:50

নিরাপত্তা নিয়ে ফের নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দিল রাজ্য সরকার। যদিও সেই চিঠির মধ্যে বিস্তারিত কিছুই নেই বলে ফের অসন্তোষ প্রকাশ করলেন রাজ্য নির্বাচন কমিশনার। আজই আদালতে গোটা বিষয়টি কমিশনের তরফে জানানো হবে। এর পাশাপাশি মনোনয়ন পর্বে অশান্তির ঘটনা বেড়ে চলায় শনিবার ফের চব্বিশ টি ব্লকে নতুনভাবে বিডিও অফিসের পরিবর্তে এসডিও অফিসে মনোনয়ন জমা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিশন।
গ্রীষ্মের ছুটির পর সোমবারই খুলছে কলকাতা হাইকোর্ট। গ্রীষ্মের ছুটির আগেই ডিভিশন বেঞ্চের নির্দেশের মধ্যে সহমত শব্দের বিরুদ্ধে কলকাতা হাইকোর্টেরই ডিভিশন বেঞ্চে আবেদন করেছিল রাজ্য নির্বাচন কমিশন। সোমবার বিষয়টি নিয়ে আদালতে আলোচনা হবে। জানা গেছে তখনই কমিশনের তরফে নিরাপত্তা প্রসঙ্গটিও আবার তোলা হবে।
ডিভিশন বেঞ্চ নিরাপত্তা নিয়ে যে রায় দিয়েছিল সেই অনুযায়ী বাহিনী মোতায়েন নিয়ে রাজ্যের শৈথিল্য ও অস্পষ্টতায় রীতিমতন অসন্তুষ্ট কমিশন। এর পাশাপাশি ডিএম এবং এসপিদের নির্দেশ দেওয়া কার এক্তিয়ারের মধ্যে পড়ে সোমবার সেই প্রসঙ্গটিও আদালতে তুলবে কমিশন। শুধু তাই নয় মনোনয়ন পর্বে বিভিন্ন জায়গায় যে অশান্তি তৈরি হচ্ছে তাও আদালতকে জানাবে কমিশন। ইতিমধ্যেই রাজ্য নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে যে চিঠি কমিশনকে পাঠিয়েছিল সেই চিঠি নিয়েও নিজেদের অসন্তোষের কথা জানিয়েছে কমিশন। শনিবার সন্ধে সেই চিঠিরই জবাব দেয় রাজ্য সরকার। যদিও কমিশন মনে করছে জবাবি চিঠিটি অসম্পূর্ণ।
এদিকে মনোনয়ন জমাকে কেন্দ্র করে প্রার্থীদের হেনস্থা আটকাতে রাজ্যের আরও চব্বিশটি ব্লকে মহকুমাশাসকের দফতরে মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়া যাবে বলে জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন। আগেও পঁয়ত্রিশটি ব্লকের জন্য একই নির্দেশ জারি করেছিল কমিশন।
নতুন চব্বিশটি ব্লকের মধ্যে রয়েছে--পূর্ব মেদিনীপুর-- নন্দীগ্রাম -দুই, খেজুরি - এক, এবং দুই,পশ্চিম মেদিনীপুর-- পিংলা, খড়গপুর দুই, মোহনপুর, চন্দ্রকোনা, কেশপুর, নারায়নগড়, দাঁতন এক এবং দুই, হুগলির ধনেখালি, গোঘাট এক ও দুই, তারকেশ্বর, খানাকুল এক ও দুই, জাঙ্গিপাড়া, আরামবাগ।
বাঁকুড়া-- ইন্দাস, বিষ্ণুপুর, তালডাংরা, সোনামুখি, কোতলপুর।
সেইসঙ্গে বিডিও অফিসের সামনে জমায়েত বন্ধ করার জন্য জেলাশাসকদের নির্দেশ দিয়েছে কমিশন। পাশাপাশি একসঙ্গে একাধিক মোটর সাইকেল আরোহীদের ভিড় যাতে বিডিও অফিসের বাইরে না হয় তারও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কমিশনের মতে, এই ধরনের ঘটনা  নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘনের সামিল।



First Published: Monday, June 3, 2013 - 08:50


comments powered by Disqus