বিয়ের সানাই বাজল রাজ্য নির্বাচন কমিশনে

দীর্ঘ ১১ মাস, এই বাড়ি জমজমাট। খবরের শিরোনামে সবসময়। কমিশনকে ঘিরে হৈ হৈ এখনও চলছে। আজও এ বাড়ি জমজমাট। তবে খবরের শিরোনামে নয়। আজ কমিশনের বাড়িতে বিয়ের আয়োজন। টানা ১১ মাসের বেশিরভাগ দিনই কোনো না কোনো ঘটনায় হৈ হৈ হয়েছে রডন স্ট্রিটের এই বাড়িতে। মাত্র কয়েকদিন আগে সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পর কিছুটা হলেও লোক জন আসায় কিছুটা হলেও ভাঁটা পড়েছে।

Updated: Jul 7, 2013, 09:05 PM IST

দীর্ঘ ১১ মাস, এই বাড়ি জমজমাট। খবরের শিরোনামে সবসময়। কমিশনকে ঘিরে হৈ হৈ এখনও চলছে। আজও এ বাড়ি জমজমাট। তবে খবরের শিরোনামে নয়। আজ কমিশনের বাড়িতে বিয়ের আয়োজন। টানা ১১ মাসের বেশিরভাগ দিনই কোনো না কোনো ঘটনায় হৈ হৈ হয়েছে রডন স্ট্রিটের এই বাড়িতে। মাত্র কয়েকদিন আগে সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পর কিছুটা হলেও লোক জন আসায় কিছুটা হলেও ভাঁটা পড়েছে।
কিন্তু হঠাৎ শুক্রবার ফের জমজমাট কমিশন দফতর। না ,কোনো সরকারি আধিকারিক বা রাজনৈতিক নেতাদের কচকচানি নয়, কমিশনে তখন ভর্তি কচিকাঁচারা। বিয়ে হচ্ছে ওই বাড়ির নিচের বাসিন্দার। পাত্র কমিশনের ভাড়া করা গাড়ির ড্রাইভার। ওই বাড়ির নিচের তলার বাসিন্দা সে। ভোটের কাজে চিঠি পত্র দেওয়ার কাজে তার গাড়ি ব্যবহার করতেন কর্তারা। রবিবার বৌভাত তাই বিয়ের সাজে সেজে উঠেছে কমিশন দফতর। অবশ্য সামনের গেট নয়, বাড়ির পিছনের গেটেই বাঁধা হয়েছে প্যান্ডাল। সন্ধ্যায় প্রীতি ভোজের আয়োজন। নিমন্ত্রীতদের তালিকায় রয়েছেন স্বয়ং মীরা পান্ডে। অবশ্য তিনি দিনভর ব্যস্ত ভোটের কাজে। কমিশনের বাকি কর্তাদের কেউ কেউ এক আধবার গিয়ে নিমন্ত্রন রক্ষা করেছেন। ভোটের গরম হাওয়ার মাঝেই একটুকরো মিষ্টি হাওয়া দিনভর ছড়িয়ে রইল কমিশনের দফতরে।