দুপুরের আগুনে ছাই কুড়িয়া বস্তি

দুপুরের আগুনে ছাই কুড়িয়া বস্তি

দুপুরের আগুনে ছাই কুড়িয়া বস্তি ভয়াবহ আগুনে ছাই হয়ে গেল ট্যাংরার সাউথ ক্যানাল রোডের কুড়িয়া বস্তি। আজ দুপুরে রান্নার সময় স্টোভ থেকে একটি ঝুপড়িতে প্রথমে আগুন লাগে বলে অনুমান। এরপরই দ্রুত আগুন ছড়িয়ে পড়ে গোটা বস্তিতে। আতঙ্কিত হয়ে পড়েন স্থানীয় বাসিন্দারা। অগ্নিকাণ্ডের জেরে দীর্ঘক্ষণ বন্ধ রাখা হয় বস্তির পাশেই পার্ক সার্কাস-বিধাননগর কর্ড শাখার ট্রেন চলাচল।

বুধবার ঘড়িতে তখন দুপুর দেড়টা। কালো ধোঁয়ায় ভরে যায় ট্যাংরার পীলখানা এলাকা। মেহের আলি লেনে কুড়িয়া বস্তিতে আগুনে ছাই হয়ে যাচ্ছে একের পর এক ঝুপড়ি।
 
এই বস্তিতেই বেশিরভাগ মানুষই কাগজ কুড়োনোর কাজ করেন। ফলে প্রতিটি ঝুপড়িতেই মজুত ছিল প্লাস্টিক এবং অন্য দাহ্য পদার্থ। এলাকায় কয়েকটি ছোট প্লাস্টিকের কারখানাও রয়েছে। তার ওপর উত্তুরে হাওয়া। ফলে আগুন ছড়িয়ে পড়তে বেশি সময় লাগেনি।
 
আগুন যত ছড়িয়েছে, ততই আতঙ্ক গ্রাস করেছে বাসিন্দাদের। রাস্তায় এবং রেললাইনে নেমে আসেন বাসিন্দারা। বন্ধ করে দিতে হয় পার্ক সার্কাস-বিধাননগর রোড কর্ড শাখার ট্রেন চলাচল। প্রথমে পাশ্ববর্তী খালের থেকে জল নিয়ে আগুন নেভানোর কাজে হাত লাগান স্থানীয় বাসিন্দারা। খবর দেওয়া হয় দমকলে। অভিযোগ, দমকল  দেরি করে পৌঁছায় ।
 
পৌঁছয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীও। ঘটনাস্থলে ১০টি ইঞ্জিন পৌঁছলেও সরু রাস্তা এবং পাশে রেললাইন থাকায় কাজ শুরু করতে বেগ পেতে হয় দমকলকর্মীদের। দীর্ঘ প্রায় দেড় ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান কলকাতা পুরসভার মেয়র পারিষদ অতীন ঘোষ। বাসিন্দাদের পাশে পুরসভা রয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। বিধ্বংসী  আগুনে একশোরও বেশি ঝুপড়ি ভস্মীভূত হয়। ধোঁয়ায় একজন অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

First Published: Wednesday, January 23, 2013, 17:52


comments powered by Disqus