শাসক দলকে সংযত হতে বললেন রাজ্যপাল

শাসক দলকে সংযত হতে বললেন রাজ্যপাল

শাসক দলকে সংযত হতে বললেন রাজ্যপালদিল্লির ঘটনার জন্য সিপিআইএম পলিটব্যুরোকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইতে বলেছেন রাজ্যপাল এম কে নারায়ণন। একইসঙ্গে, শাসকদলকে সংযত থেকে রাজ্যে শান্তি বজায় রাখার আবেদন জানিয়েছেন তিনি। রাজ্যপালের এই বিবৃতির কিছুক্ষণের মধ্যেই দিল্লির ঘটনায় দুঃখপ্রকাশ করেন সিপিআইএম পলিটব্যুরো সদস্য সীতারাম ইয়েচুরি। মুখ্যমন্ত্রীর অবশ্য দাবি, রাজ্যে হিংসার ঘটনাই ঘটেনি।  

দিল্লিতে মঙ্গলবারের ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন রাজ্যপাল। বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, "রাজধানীতে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রী সহ অন্য মন্ত্রীদের ওপর পূর্ব পরিকল্পিত হামলার ঘটনা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক। এই হামলা দেশের গণতান্ত্রিক মূল্যবোধকে আঘাত করেছে। এই ধরনের ঘটনার তীব্র নিন্দা হওয়া উচিত। যাঁরা এই হামলায় জড়িত বা যাঁরা এতে প্ররোচনা দিয়েছেন, তাঁরা গণতান্ত্রিক কাঠামোর সীমা লঙ্ঘন করেছেন। গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে নির্বাচিত মুখ্যমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রী ও মন্ত্রিসভার অন্য সদস্যদের ওপর এই হামলার ঘটনা আধুনিক ভারতে নজিরবিহীন।"

নজিরবিহীন ভাবে রাজ্যপাল বলেছেন, "এ জন্য সিপিআইএম পলিটব্যুরোর তরফে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়া উচিত।"

তবে, রাজ্যপাল বলার আগে মঙ্গলবারই ওই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছিলেন সিপিআইএমের তিন পলিটব্যুরো সদস্য বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য, বিমান বসু ও সূর্যকান্ত মিশ্র। প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য বলেন, যে রাজনীতির জেরে এই ঘটনা, তা ভুল রাজনীতি। কেউ একে সমর্থন করবেন না।

বুধবার ঘটনার নিন্দা করে বিবৃতি দিয়েছে সিপিআইএম পলিটব্যুরো।

দিল্লির ঘটনার জেরে মঙ্গলবার থেকেই বাম দলগুলির কার্যালয়, বাম নেতা-কর্মীদের উপর হামলা শুরু হয়েছে। বুধবারও তা অব্যাহত। বিবৃতিতে রাজ্যপাল তৃণমূল কংগ্রেসকেও সংযত থাকার আবেদন করে বলেছেন, "একই সঙ্গে, তৃণমূল কংগ্রেস সহ রাজ্যের অন্যান্য অংশের কাছেও শান্তি বজায় রাখা ও আবেগকে সংযত রাখার আবেদন করছি।

মুখ্যমন্ত্রী অবশ্য দিল্লিতেই জানিয়ে দেন রাজ্যে কোনও হিংসা ছড়াচ্ছে না।






First Published: Wednesday, April 10, 2013, 17:08


comments powered by Disqus