ধর্ষিতাদের ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য হাসপাতালকে নয়া নির্দেশিকা স্বাস্থ্য দফতর

ধর্ষিতাদের ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য হাসপাতালকে নয়া নির্দেশিকা স্বাস্থ্য দফতরের

ধর্ষিতাদের ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য হাসপাতালকে নয়া নির্দেশিকা স্বাস্থ্য দফতরেরসরকারি হাসপাতালে ধর্ষিতাদের ডাক্তারি পরীক্ষায় চিকিত্সকদের জন্য নির্দেশাবলি জারি করল রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর। স্পেশাল অপারেশনাল প্রসিডিওর নামে ওই নির্দেশিকা ইতিমধ্যেই পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

এই বছর সেপ্টেম্বর মাসে সুপ্রিম কোর্টে একটি মামলার রায়ের পরিপ্রেক্ষিতে সরকারি হাসপাতালে ধর্ষিতাদের ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নির্দেশাবলি জারি করল রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর। নির্দেশিকায় বলা হয়েছে,

১. তদন্তকারী পুলিস অফিসার এবং ম্যাজিস্ট্রেটের লিখিত নির্দেশ ছাড়া নির্যাতিতার ডাক্তারি পরীক্ষা হবে না।
 
২. হাসপাতালে আসার সঙ্গেসঙ্গেই নির্যাতিতার ডাক্তারি পরীক্ষা শুরু করতে হবে।
 
৩. স্বাস্থ্য দফতরের নির্ধারিত ফরম্যাটে পরীক্ষা করতে হবে।
 
৪. প্রয়োজনে নির্যাতিতার চিকিত্সা শুরু করতে হবে।
 
৫. নির্যাতিতাকে পরীক্ষা করবেন কোনও মহিলা চিকিত্সক।
 
৬. পরীক্ষার সময় বাধ্যতামূলক ভাবে রাখতে হবে মহিলা নার্স বা স্বাস্থ্যকর্মী। তাঁদের স্বাক্ষর করাও বাধ্যতামূলক।
 
৭. নির্যাতিতার লিখিত সম্মতি নিয়ে তবেই ডাক্তারি পরীক্ষা হবে।
 
৮. নির্যাতিতা নাবালিকা হলে বা মানসিক ভাবে স্থিতিশীল না হলে সম্মতিপত্রে স্বাক্ষর করবেন অভিভাবকরা।
 
৯. যে ভাষায় নির্যাতিতা বিবরণ দেবেন, সেই ভাষা এবং বয়ানই নথিবদ্ধ করতে হবে।
 
১০. নির্যাতিতার থেকে সংগৃহীত নমুনা সিল করা খামে রাখতে হবে।
 
এই নির্দেশিকা ইতিমধ্যেই পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে রাজ্যের সমস্ত সরকারি হাসপাতালের সুপার এবং মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ এবং জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিকদের কাছে। নির্যাতিতার বয়ান যে ফরম্যাটে নথিভুক্ত করতে হবে, সেই ফরম্যাটও পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।


 

First Published: Friday, November 01, 2013, 11:48


comments powered by Disqus