রাজ্যজুড়ে তুমুল বৃষ্টি, রাজ্যের দিকে মুখ ফিরিয়েছে নিম্নচাপ, আরও ভোগান্তির আশঙ্কা, ভাসছে কলকাতার অধিকাংশ এলাকা, পুরমন্ত্রীকে দ্রুত জল সরানোর নির্দেশ মমতার

অন্ধ্রপ্রদেশে তৈরি হওয়া নিম্নচাপের জেরে পশ্চিমবঙ্গ থেকে বাংলাদেশে তৈরি হয়েছে নিম্নচাপ অক্ষরেখা। পাশাপাশি বাংলাদেশ লাগোয়া সুন্দরবনে তৈরি হয়েছে ঘূর্ণাবর্ত। এর প্রভাবে গতকাল রাত থেকে দক্ষিণবঙ্গের সবকটি জেলায় প্রবল বৃষ্টি চলছে। নিম্নচাপ ও ঘুর্ণাবর্তের জোড়া ফলায় আগামি ৪৮ ঘণ্টায় দক্ষিণবঙ্গের সবকটি জেলায় ভারি থেকে অতিভারি বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর।

Updated: Oct 26, 2013, 08:49 AM IST

অন্ধ্রপ্রদেশে তৈরি হওয়া নিম্নচাপের জেরে পশ্চিমবঙ্গ থেকে বাংলাদেশে তৈরি হয়েছে নিম্নচাপ অক্ষরেখা। পাশাপাশি বাংলাদেশ লাগোয়া সুন্দরবনে তৈরি হয়েছে ঘূর্ণাবর্ত। এর প্রভাবে গতকাল রাত থেকে দক্ষিণবঙ্গের সবকটি জেলায় প্রবল বৃষ্টি চলছে। নিম্নচাপ ও ঘুর্ণাবর্তের জোড়া ফলায় আগামি ৪৮ ঘণ্টায় দক্ষিণবঙ্গের সবকটি জেলায় ভারি থেকে অতিভারি বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর।
এদিকে, তুমুল বৃষ্টির জেরে নাকাল রাজ্যবাসী। শহর কলকাতা, শহরতলী, ও তার লাগোয়া অঞ্চলে জল জমতে শুরু করেছে। বেহালা ইতি মধ্যেই জলের তলায় চলে গিয়েছে। উত্তর থেকে দক্ষিণের বিভিন্ন জায়গায় জল জমে বিপর্যস্ত জনজীবন। সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউ, রবীন্দ্র সরণি, স্ট্র্যান্ড রোড, প্রণবানন্দ সরণি, এসপি মুখার্জি রোড, আলিপুর রোড, নিউ আলিপুর রোড, গড়ফা মেন রোড এবং কসবা বাইপাস কানেক্টরে জল জমে গিয়েছে। গুরুসদয় রোডে ভেঙে পড়েছে গাছ। গত ২৪ ঘণ্টায় ১০০ মিলিমিটারের বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছে।
এদিকে শহরের জমা জল দ্রুত সরাতে শিলিগুড়ি থেকে ফোনে নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমকে ফোনে মমতা নির্দেশ দেন শহরের জমা-জল দ্রুত সরাতে পদক্ষেপ নিন। শহরের সর্বশেষ পরিস্থিতি কী, তাও ফিরহাদ হাকিমের কাছে জেনে নেন৷ কন্ট্রোল রুম সামলানোর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে পুরমন্ত্রীকে।
সকাল থেকে বাস, ট্রামের সংখ্যা খুব কম। নিত্যযাত্রীরা এতে সমস্যা পড়েছেন। অবশ্য বৃষ্টির জেরে অনেকেই অফিসে বেরোতে সাহস পাননি।
রেকর্ড বৃষ্টিতে কলকাতা শহরের বিভিন্ন এলাকায় জল জমেছে। কিন্তু পুরসভা দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ায় জল নামতে শুরু করেছে। দাবি কলকাতা পুরসভার মেয়র পারিষদ অতীন ঘোষের।