ভাঙড়কাণ্ডে আহতদের চিকিৎসা চলছে কলকাতায়

ভাঙড়ের বামনঘাটায় হামলায় আহত সিপিআইএম সমর্থকদের চিকিত্‍সা চলছে কলকাতার দুটি বেসরকারি হাসপাতালে। তাঁদের মধ্যে গুলিবিদ্ধ পাঁচজন। তিনজনের অস্ত্রোপচার হয়েছে। ভাঙড়ের বামনঘাটায় সিপিআইএমের মিছিলে হামলায় অনেকেই আহত হন। জখমদের সোজা আর এন টেগোর হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। সুজিত দাস, হাসিম আলি মোল্লা এবং মনসুর আলি শিকারি গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। কুতুব আলি মোল্লার কানের লতিতে গুলি লেগেছে। সইদুল মোল্লার তলপেটে ও রহিম মোল্লার চোখে ইটের আঘাত লেগেছে।

Updated: Jan 9, 2013, 01:13 PM IST

ভাঙড়ের বামনঘাটায় হামলায় আহত সিপিআইএম সমর্থকদের চিকিত্‍সা চলছে কলকাতার দুটি বেসরকারি হাসপাতালে। তাঁদের মধ্যে গুলিবিদ্ধ  পাঁচজন। তিনজনের অস্ত্রোপচার হয়েছে।
ভাঙড়ের বামনঘাটায় সিপিআইএমের মিছিলে হামলায় অনেকেই আহত হন। জখমদের সোজা আর এন টেগোর হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। সুজিত দাস, হাসিম আলি মোল্লা এবং মনসুর আলি শিকারি গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। কুতুব আলি মোল্লার কানের লতিতে গুলি লেগেছে। সইদুল মোল্লার তলপেটে ও রহিম মোল্লার চোখে ইটের আঘাত লেগেছে। 
প্রাথমিক চিকিত্‍সার পর ছেড়ে দেওয়া হয় হারুণ ঘোষ মল্লিককে। রহিম মোল্লা, কুতুব মোল্লা এবং সইদুল মোল্লাকে পাঠানো হয় পিয়ারলেস হাসপাতালে। অস্ত্রোপচারের পর হাসিম আলি মোল্লা ও মনসুর আলি শিকারিকেও সেখানে পাঠানো হয়েছে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় আর এন টেগোর হাসপাতালে ভর্তি সুজিত দাস। আরও অনেকেই অল্পবিস্তর জখম হয়েছেন।
আতঙ্কের সেই স্মৃতি ভুলতে পারছেন না আহতরা। একই সঙ্গে নতুন করে অশান্তি ছড়ানোর আশঙ্কাও করছেন তাঁরা।