বাসের যন্ত্রণা যাত্রা

পয়লা সেপ্টেম্বর থেকে রাজ্যে চালু হচ্ছে বর্ধিত বাসভাড়া। স্বভাবতই এবার পরিষেবার মান নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। শহরের রাস্তায় যেসব বাস চলে, তার মধ্যে বেশ কিছু এমন বাস রয়েছে, যা কোনও সভ্য শহরে চলে না। ফি বছর ফিটনেস পরীক্ষায়  কী ভাবে এই বাস গুলি উতরোয় তা নিয়েও রয়েছে ধোঁয়াশা।

Updated: Aug 27, 2014, 08:54 PM IST
বাসের যন্ত্রণা যাত্রা

কলকাতা: পয়লা সেপ্টেম্বর থেকে রাজ্যে চালু হচ্ছে বর্ধিত বাসভাড়া। স্বভাবতই এবার পরিষেবার মান নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। শহরের রাস্তায় যেসব বাস চলে, তার মধ্যে বেশ কিছু এমন বাস রয়েছে, যা কোনও সভ্য শহরে চলে না। ফি বছর ফিটনেস পরীক্ষায়  কী ভাবে এই বাস গুলি উতরোয় তা নিয়েও রয়েছে ধোঁয়াশা।

কীভাবে সম্ভব এটা? THE WEST BENGAL MOTOR VEHICLES RULE 1989 অনুযায়ী, প্রতি বছর প্রতিটি বাসের ফিটনেস সার্টিফিকেট পরীক্ষা বাধ্যতামূলক। যাত্রী স্বাচ্ছন্দ বজায় রাখার বিষয়গুলি পূরণ না হলে ফিটনেস সার্টিফিকেট নবীকরণ হয়না।  স্বাচ্ছন্দের যে মাপকাঠিগুলি ঠিক করে দেওয়া রয়েছে তা হল.

১) বাসের ভিতরে-বাইরে কাঠামো, রং পরিস্কার পরিচ্ছন্ন থাকবে।
২) বসার আসন আরামদায়ক থাকবে।
৩) যাত্রীপিছু বাসে অন্তত ৩৮ বর্গমিটার জায়গা থাকবে।
৪) ২টি সিটের মধ্যে ৬৬ সেন্টিমিটার জায়গা থাকবে।
৫) সিটের পিছনে কমপক্ষে ৪১ সেন্টিমিটার হেলান দেওয়ার জায়গা থাকবে।
৬) দুদিকের সিটের মধ্যে কমপক্ষে ৩১ সেন্টিমিটার খোলা জায়গা থাকবে।
৭) রাস্তা থেকে বাসের পা-দানির উচ্চতা সর্বোচ্চ ৪৩ সেন্টিমিটার থাকবে।
৮) সিটগুলি গদি বা কাপড় দিয়ে পরিচ্ছন্নভাবে ঢাকা থাকবে। গাড়ির দরজা, জানলা, অন্যান্য অংশ অক্ষত থাকবে।
৯) গাড়িতে অগ্নি-নির্বাপণ এবং ফার্স্ট এড চিকিত্সার ব্যবস্থা থাকবে।

বেসরকারি বাসের ৯০ শতাংশই এই নিয়মগুলি পুরোপুরি মানতে ব্যর্থ। অস্বীকার করেননি বাস মালিকরাও। ভাড়া বেড়েছে। এবার হয়তো বসে থাকা বাসগুলিও রাস্তায় নামাবেন মালিকরা। কিন্তু যাত্রীস্বাচ্ছন্দের খেয়াল রাখবে কে? প্রশ্ন সেটাই।