ভাড়া নীতির কোপে শহর থেকে উধাও বাস

পুরনো স্টেজে নয়া ভাড়া ঘোষণার পর কলকাতা এবং শহরতলিতে বসে গেল প্রায় ২ হাজার বাস। গত বছর এ সময়ে চলত প্রায় ৭ হাজার বাস। কিন্তু ডিজেলের দামবৃদ্ধি সহ আনুষঙ্গিক খরচের কারণে এ বছরের ফেব্রুয়ারি মাস থেকেই ২ হাজার বাস বসে যায়। গত ৩১ অক্টোবর রাজ্য সরকার নয়া ভাড়া ঘোষণা করার পর ফের রাস্তায় নামে হাজার দেড়েক বাস। কিন্তু গত বৃহস্পতিবার পুরনো স্টেজে নয়া ভাড়া অর্থাত্ প্রতি স্টেজ অনুযায়ী এক টাকা বৃদ্ধির ঘোষণার পরই বসে গেছে প্রায় দু হাজার বাস।

Updated: Nov 19, 2012, 11:39 AM IST

পুরনো স্টেজে নয়া ভাড়া ঘোষণার পর কলকাতা এবং শহরতলিতে বসে গেল প্রায় ২ হাজার বাস। গত বছর এ সময়ে চলত প্রায় ৭ হাজার বাস। কিন্তু ডিজেলের দামবৃদ্ধি সহ আনুষঙ্গিক খরচের কারণে এ বছরের ফেব্রুয়ারি মাস থেকেই ২ হাজার বাস বসে যায়। গত ৩১ অক্টোবর রাজ্য সরকার নয়া ভাড়া ঘোষণা করার পর ফের রাস্তায় নামে হাজার দেড়েক বাস। কিন্তু গত বৃহস্পতিবার পুরনো স্টেজে নয়া ভাড়া অর্থাত্ প্রতি স্টেজ অনুযায়ী এক টাকা বৃদ্ধির ঘোষণার পরই বসে গেছে প্রায় দু হাজার বাস।
বন্ধ হয়ে গেছে হুগলি জেলার ৪৭ টি রুটের পরিষেবা। বাঁকুড়া, বর্ধমান, হাওড়া, হুগলি, উত্তর চব্বিশ পরগনা এবং দুই মেদিনীপুরে এই বাস রুট ছড়িয়ে। ফলে নিত্যদিন বিপাকে পড়ছেন যাত্রীরা। বারুইপুর-বারাসত রুটের কোনও বাসই চলছে না। ৮৯, ৫৪, ২৫৯ রুটের বেশিরভাগ বাস বন্ধ হয়ে গেছে। আগামী ২৩ নভেম্বর বাস মালিক সংগঠনের বৈঠক। সেখানেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন বাস মালিকরা।