বেকারদের দাবি নিয়ে মহাকরণ অভিযানে বাম যুব সংগঠন

বেকারদের চাকরির দাবি নিয়ে ২৫ এপ্রিল মহাকরণ অভিযান করবে ৮টি বাম যুব সংগঠন। একইসঙ্গে পুলিস হেফাজতে সুদীপ্ত গুপ্তর মৃত্যুর বিচারবিভাগীয় তদন্তেরও দাবি তুলবেন তাঁরা। ২ এপ্রিল বামপন্থী ছাত্র সংগঠনগুলির আইন অমান্য আন্দোলনের পর এবার পথে নামছে ৮টি বাম যুব সংগঠন। কলেজ স্ট্রীট থেকে মিছিল করে মহাকরণে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর হাতে নিজেদের দাবিসনদ তুলে দিতে চান তাঁরা।

Updated: Apr 18, 2013, 10:04 PM IST

বেকারদের চাকরির দাবি নিয়ে ২৫ এপ্রিল মহাকরণ অভিযান করবে ৮টি বাম যুব সংগঠন। একইসঙ্গে পুলিস হেফাজতে সুদীপ্ত গুপ্তর মৃত্যুর বিচারবিভাগীয় তদন্তেরও দাবি তুলবেন তাঁরা। ২ এপ্রিল বামপন্থী ছাত্র সংগঠনগুলির আইন অমান্য আন্দোলনের পর এবার পথে নামছে ৮টি বাম যুব সংগঠন। কলেজ স্ট্রীট থেকে মিছিল করে মহাকরণে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর হাতে নিজেদের দাবিসনদ তুলে দিতে চান তাঁরা।  
এনিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্ন ছিল,  হঠাত্‍ কেন মুখ্যমন্ত্রীর কাছে দাবিসনদ? ডিওয়াইএফআই নেতা আভাস রায়চৌধুরীর বক্তব্য, ‍"এমপ্লয়মেন্ট এক্সচেঞ্জতো পশ্চিমবঙ্গে বাম সরকারের আমল থেকেই রয়েছে। লড়াই আন্দোলনের মধ্য দিয়ে বেকার ভাতা চালু হয়েছিল। তাহলে এমপ্লয়মেন্ট এক্সচেঞ্জকে বাদ দিয়ে কেন নতুন করে এমপ্লয়মেন্ট ব্যাঙ্কের কথা আসছে? তবে কি এমপ্লয়মেন্ট ব্যাঙ্ক সরাসরি মন্ত্রীরা নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন?"
প্রশ্ন ছিল, ওই মিছিল কি আইন অমান্য করবে? নাকি তা শান্তিপূর্ণই থাকবে? আভাস রায়চৌধুরীর বক্তব্য, "সেইদিন রাস্তায় সরকার এবং প্রশাসনের ভূমিকার ওপর নির্ভর করবে আন্দোলনের গতিপ্রকৃতি। রাজ্য সরকার রাজ্যের যুব সমাজের বক্তব্য শুনবেন আশা রাখছি আমরা।"
 
প্রশ্ন ছিল, বামপন্থী যুবরা কি মুখ্যমন্ত্রীর অপসারণের দাবি তুলবেন? প্রশ্নের উত্তরে আভাস বলেন, "জনগণের দ্বারা নির্বাচিত মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই সরকারের পদত্যাগের দাবি আমরা করছি না।"
 
ইতিমধ্যে কলেজ স্ট্রীট থেকে মিছিল করার অনুমতি পেয়ে গিয়েছে বাম যুব সংগঠনগুলি। তবে কোন পথে তা মহাকরণ পৌঁছবে তা ঠিক করে দেওয়ার দায়িত্ব বামেরা প্রশাসনের ওপরই ছেড়েছেন।