মমতার তিরস্কার, কড়ি থেকে কোমলে পরিবহণমন্ত্রী

Last Updated: Saturday, June 2, 2012 - 18:37

পরিবহণ সংস্থাগুলির ৫০ শতাংশ কর্মীকে স্বেচ্ছাবসর প্রসঙ্গে মুখ খোলায় মদন মিত্রকে তিরস্কার করলেন মুখ্যমন্ত্রী। এর পরই এবিষয়ে অবস্থান বদল করেন পরিবহণমন্ত্রী। শনিবার মহাকরণে এক সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি দাবি করেন, কর্মী ছাঁটাই করা হবে, এমন কোনও মন্তব্য করেননি তিনি। সংবাদমাধ্যম তাঁর বক্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা করেছে। শুধু স্বেচ্ছাবসররের প্রস্তাবের কথা অস্বীকার নয়, সরকারি পরিবহণ সংস্থাগুলি থেকে অদূর ভবিষ্যতে সরকার ভর্তুকি তুলবে না বলেও আশ্বাস দেন মদন মিত্র।
রাষ্টায়ত্ত পরিবহণ সংস্থাগুলির ভবিষ্যত্‍ নির্ধারিত করতে শুক্রবার সংস্থাগুলির কর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন পরিবহণমন্ত্রী। বৈঠকের পর এক সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি বলেন, "পরিবহণ সংস্থাগুলিতে বহু অক্ষম কর্মী আছে। তাঁরা বসে বসে মাইনে তুলছেন। এদের নিয়ে মোট ৫০ শতাংশ কর্মীকে স্বেচ্ছাবসর নেওয়ানোর পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। এই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হলে লাভের মুখ দেখতে পারে পরিবহণ সংস্থাগুলি। এছাড়া ওই সংস্থাগুলিকে বাঁচানোর জন্য কোনও ম্যাজিক নেই তাঁর কাছে। গোটা পরিকল্পনাটি দিনকয়েকের মধ্যেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে পাঠানো হবে।" পাশাপাশি পরিবহণ মন্ত্রী এ-ও জানান, অক্ষম কর্মীদের স্বেচ্ছাবসর দিয়ে চুক্তির ভিত্তিতে অস্থায়ী কর্মী নিয়োগ করবে রাজ্য সরকার।
মদনবাবুর এই বক্তব্য সংবাদমাধ্যমে সম্প্রচারিত হতেই রাজ্য জুড়ে সরকারি পরিবহণ কর্মীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়ায়। বর্তমানে রাজ্যের ৫টি রাষ্ট্রায়ত্ত পরিবহণ সংস্থায় প্রায় ২০ হাজার কর্মী আছেন। পরিবহণ মন্ত্রীর পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হলে এদের মধ্যে প্রায় ১০ হাজার কর্মীকে সরতে হবে ভেবে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন পরিবহণ কর্মীরা। মদনবাবুর ঘোষণার পর তৃণমূল কংগ্রেসের পরিবহণ কর্মী ইউনিয়নের নেতাদের মাথায় বাজ পড়ে। মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেন তাঁরা। শুক্রবার সাগর সফরে থাকায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে তাঁরা যোগাযোগ করে উঠতে পারেননি। পরে গভীর রাতে মুখ্যমন্ত্রীকে গোটা বিষয়টি জানান তৃণমূল নেতারা।
শনিবার মদন মিত্রকে মহাকরণে নিজের ঘরে ডেকে পাঠান মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর সঙ্গে কোনও রকম আলোচনা না করে কর্মী ছাঁটাইয়ের মতো একটি গুরুতর বিষয়ে আলোচনা করায় তাঁকে তিরস্কার করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁকে বিষয়টি বুঝিয়ে বলেন পরিবহণমন্ত্রী। এর পর এক সাংবাদিক সম্মেলনে মদনবাবু বলেন, "আমি কর্মী ছাঁটাই করব বলিনি। বুঝতে বা বোঝাতে ভুল হয়েছে। কর্মী ছাঁটাই তৃণমূলের নীতি নয়। তাই এভাবে কোনও সংস্থার পুনরুজ্জীবন করবে না রাজ্য সরকার।" পাশাপাশি পরিবহণ সংস্থাগুলির ওপর থেকে রাজ্য সরকার এই মুহূর্তে ভর্তুকি প্রত্যাহার করবে না বলেও জানান মদনবাবু। প্রশ্ন উঠছে, মুখ্যমন্ত্রীর তিরস্কারেই কি অবস্থান বদল পরিবহণমন্ত্রীর?



First Published: Saturday, June 2, 2012 - 22:17


comments powered by Disqus