সুপারিশ না-মানায় পদত্যাগের সিদ্ধান্ত ক্ষুব্ধ মহাশ্বেতা দেবীর

বাংলা অ্যাকাডেমির সভাপতির পদ থেকে সরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেন মহাশ্বেতা দেবী। এই মর্মে মুখ্যমন্ত্রীকে বুধবার চিঠি  পাঠিয়েছেন তিনি। বিদ্যাসাগর পুরস্কার প্রাপকদের নির্বাচনে সরকারি হস্তক্ষেপে অপমানিত বোধ করায় এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন বিশিষ্ট সাহিত্যিক।

Updated: May 23, 2012, 06:18 PM IST

বাংলা অ্যাকাডেমির সভাপতির পদ থেকে সরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেন মহাশ্বেতা দেবী। এই মর্মে মুখ্যমন্ত্রীকে বুধবার চিঠি  পাঠিয়েছেন তিনি। বিদ্যাসাগর পুরস্কার প্রাপকদের নির্বাচনে সরকারি হস্তক্ষেপে অপমানিত বোধ করায় এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন বিশিষ্ট সাহিত্যিক। মুখ্যমন্ত্রীর দফতরে ফোন করে তাঁর এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েও দিয়েছেন।
মহাশ্বেতা দেবীর বক্তব্য, খুব শীঘ্রই ঘোষিত হবে বিদ্যাসাগর পুরস্কার-সহ সাহিত্যে বিভিন্ন পুরস্কারপ্রাপকদের নাম। বিদ্যাসাগর পুরস্কারের জন্য দু`জন সাহিত্যকের নাম সুপারিশ করেছিলেন তিনি। মহাশ্বেতা দেবীর অভিযোগ, তিনি যথেষ্ট যাগ্য ব্যক্তির নাম সুপারিশ করলেও তাঁর সঙ্গে কোনওরকম আলোচনা না-করেই একজনের নাম বাদ দিয়েছে সরকার। বাংলা অ্যাকেডেমির সর্বোচ্চ পদে আসীন হওয়া সত্ত্বেও তাঁর অনুমতি ছাড়াই সরকারের এই ধরণের হস্তক্ষেপে যথেষ্ট অপমানিত হয়েছেন তিনি। সেই কারণেই পদত্যাগের মত চরম সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। সরকারের এই আচরণে তিনি মর্মাহত বলেও এদিন জানান মহাশ্বেতা দেবী।
মুখ্যমন্ত্রী উদ্দেশে লেখা চিঠিটি এদিন সাংবাদিকদের পড়ে শোনান মহাশ্বেতা দেবী।