নিজের সরকারকে ফেসবুকে সার্টিফিকেট মুখ্যমন্ত্রীর

Last Updated: Sunday, May 19, 2013 - 22:23

দুবছর পূর্তিতে নিজের সরকারকে নিজেই সার্টিফিকেট দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। ফেসবুক বার্তায় তাঁর দাবি, গত দুবছরে অভূতপূর্ব কাজ করে দেখিয়েছে রাজ্য সরকার। উন্নয়নের বেশ কয়েকটি সূচকে রাজ্যের বৃদ্ধির হার, জাতীয় হারের থেকে বেশি বলেও দাবি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।
পুরনো কিছু অভিযোগ, আর সাফল্যের কয়েকটি পরিসংখ্যান। দু`বছর পূর্তিতে মুখ্যমন্ত্রীর ফেসবুক বার্তা যেন তাঁর দু`বছর ধরে বলে আসা দাবি আর অভিযোগেরই সংকলন। মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, কোনও সরকারের মূল্যায়নের জন্য দু`বছর যথেষ্ট নয়। সরকারের মাথায় পূর্ববর্তী চৌত্রিশ বছরের দায় রয়েছে। পূর্ববর্তী বাম সরকারের ২ লক্ষ কোটি টাকার বেশি ঋণ রয়েছে সরকারের মাথায়। বাম আমলে সম্পূর্ণ ভেঙে পড়েছিল সরকারি ব্যবস্থা।  
মুখ্যমন্ত্রীর দাবি, ঋণের বোঝা সত্ত্বেও ভাল কাজ করে দেখিয়েছে তাঁর সরকার। ২০১২-১৩ আর্থিক বছরে উন্নয়নের বেশ কয়েকটি সূচকে রাজ্যের পারফরম্যান্স জাতীয় হারের থেকে ভাল। জিডিপি এবং কৃষি, শিল্প ও পরিষেবা ক্ষেত্রে রাজ্যের বৃদ্ধির হার জাতীয় হারের থেকে বেশি। দেশের জিডিপি যেখানে ৪.৯৬ শতাংশ, পশ্চিমবঙ্গের বৃদ্ধির হার সেখানে ৭.৬। কৃষিক্ষেত্রে বৃদ্ধির জাতীয় হার ১.৭৯, সেখানে কৃষিক্ষেত্রে রাজ্যের বৃদ্ধির হার ২.৫৬ শতাংশ। শিল্পক্ষেত্রে ৩.১২ শতাংশ বৃদ্ধির জাতীয় হারকে ছাপিয়ে গিয়েছে রাজ্য। রাজ্যের বৃদ্ধির হার ৬.২৪ শতাংশ। পরিষেবা ক্ষেত্রে জাতীয় বৃদ্ধির হার ৬.৫৯ শতাংশ। যেখানে রাজ্যের বৃদ্ধির হার ৯.৪৮ শতাংশ। মুখ্যমন্ত্রীর দাবি, এই পরিসংখ্যানই প্রমাণ করছে নতুন বাংলা গড়তে তাঁর সরকার কতটা অঙ্গীকারবদ্ধ।   
নিজের সরকারের ভূয়সী প্রশংসার পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রী দুষেছেন কেন্দ্রকে। মুখ্যমন্ত্রীর দাবি, ২০১২-১৩ আর্থিক বছরে ৩২ হাজার কোটি টাকা রাজস্ব সংগ্রহ করা হয়েছে। যা পূর্ববর্তী আর্থিক বছরের তুলনায় রেকর্ড ৩০ শতাংশ বেশি। মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ, এই অতিরিক্ত টাকা উন্নয়নের কাজে লাগাতে পারছেন না কারণ কেন্দ্রীয় সরকার বাম আমলের ঋণের সুদ হিসেবে সরকারের অ্যাকাউন্ট থেকে ২৬ হাজার কোটি টাকা কেটে নিচ্ছে। কেন্দ্রীয় সরকারের গ্রামীণ কর্মসংস্থান প্রকল্পেও রাজ্যের পারফরম্যান্সকে সর্বশ্রেষ্ট সার্টিফিকেট দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রীর দাবি, একশো দিনের কাজে টাকা খরচের হিসেবে গোটা দেশে একনম্বর পশ্চিমবঙ্গ। বরাদ্দ টাকার একশো সাত শতাংশ খরচ করেছে রাজ্য। গত আর্থিক বছরে এই টাকা খরচের হিসেবে রাজ্য গোটা দেশে সতেরো থেকে তেইশ নম্বরের মধ্যে ছিল বলে দাবি মুখ্যমন্ত্রীর।
যদিও মুখ্যমন্ত্রীর বার্তায় উঠে আসেনি রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির কথা। রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে নারী নির্যাতন, হালফিলের সারদা চিটফান্ড কাণ্ড, পঞ্চায়েত ভোট নিয়ে জটিলতা সবকটি বিষয়কেই এড়িয়ে গিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।    



First Published: Sunday, May 19, 2013 - 22:23


comments powered by Disqus