তৃণমূল সমর্থিত সরকারি কর্মীদের কো-অর্ডিনেশন ভেঙে দেওয়ার ডাক মুখ্যমন্ত্রীর

তৃণমূল সমর্থিত সরকারি কর্মীদের সভায় দাঁড়িয়ে কো-অর্ডিনেশন ভেঙে দেওয়ার ডাক দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একবার নয়, তিন তিনবার তাঁর বক্তব্যে জায়গা করে নিল কো-অর্ডিনেশন কমিটির প্রতি তোপ। গত আড়াই বছর ধরে সরকারি ব্যবস্থার যেকোনও ত্রুটির জন্যই বারবার আঙুল উঠেছে কো-অর্ডিনেশন কমিটির দিকে। কখনও অভিযোগ মুখ্যমন্ত্রীর। কখনও অন্য মন্ত্রীরা। ফাঁকিবাজ, অকর্মণ্যের মতো তকমা সেঁটে দেওয়া হয়েছে কো-অর্ডিনেশনের গায়ে। এবার আর অভিযোগ নয়, সরাসরি সংগঠনকে ভেঙেই দিতে বললেন মুখ্যমন্ত্রী।

Updated: Feb 22, 2014, 08:26 PM IST

তৃণমূল সমর্থিত সরকারি কর্মীদের সভায় দাঁড়িয়ে কো-অর্ডিনেশন ভেঙে দেওয়ার ডাক দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একবার নয়, তিন তিনবার তাঁর বক্তব্যে জায়গা করে নিল কো-অর্ডিনেশন কমিটির প্রতি তোপ। গত আড়াই বছর ধরে সরকারি ব্যবস্থার যেকোনও ত্রুটির জন্যই বারবার আঙুল উঠেছে কো-অর্ডিনেশন কমিটির দিকে। কখনও অভিযোগ মুখ্যমন্ত্রীর। কখনও অন্য মন্ত্রীরা। ফাঁকিবাজ, অকর্মণ্যের মতো তকমা সেঁটে দেওয়া হয়েছে কো-অর্ডিনেশনের গায়ে। এবার আর অভিযোগ নয়, সরাসরি সংগঠনকে ভেঙেই দিতে বললেন মুখ্যমন্ত্রী।

উপলক্ষ ছিল তৃণমূল সমর্থিত সরকারি কর্মচারীদের নেতাজি ইনডোরে সম্মেলন। উদ্দেশ্য উনিশটি তৃণমূলপন্থী সংগঠনকে এক ছাতার তলায় আনা। কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের সঙ্গে এখন রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের ডিএর ফারাক বিপুল। অনেকেই আশায় বুক বেঁধেছিলেন হয়তো বকেয়া ডিএ-র ঘোষণা করবেন মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু, পূরণ হল না সেই আশা।

অবশ্য নতুন সরকারি আবাসন প্রকল্প আকাঙ্খার ঘোষণা,স্বাস্থ্য প্রকল্পে এক লক্ষ টাকা পর্যন্ত ক্যাশলেস, ছিল মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণায়। তবে, এই উপহারের আসল লক্ষ্য যে কো-অর্ডিনেশনকে আঘাত করা তাও কিন্তু বারবার মনে করিয়ে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. You can find out more by clicking this link

Close