জিটিএ ভাঙতে নারাজ মমতা, পাহাড়ে অশান্তিতে দায়ী করলেন কেন্দ্রকে

Last Updated: Wednesday, July 31, 2013 - 17:06

তেলেঙ্গানের আঁচ এখন পাহাড়েও। নতুন করে জোর নিচ্ছে রাজ্যভাগের দাবি। গোর্খাল্যান্ডের দাবিতে বনধের ডাক দার্জিলিং-এ। তেলেঙ্গানাকে পৃথক রাজ্যের স্বীকৃতি থেকেই অখুশি তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পাহার ভাগের দাবিকে যে কখনওই সমর্থন করবে না রাজ্য সরকার, সেই কথাই বুধবার মহাকরণে স্পষ্ট করে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী।
`জিটিয়ে ভাঙছি না`
জন মুক্তি মোর্চার নেতা বিমল গুরুং জিটিয়ে থেকে পদত্যাগ করেছেন। মোর্চা নেতার পদত্যাগ পত্র গ্রহণ করে নেওয়ার কথা স্বীকার করে নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, "পদত্যাগ গ্রহণ করে নিয়েছি। পদত্যাগ করতেই পারেন তিনি।" জিটিএর ভবিষ্যৎ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, "জিটিএ ভাঙার প্রশ্নই আসে না।" মমতার যুক্তি, ত্রিপাক্ষিক চুক্তির পর জিটিএ গঠিত হয়েছে। ফলে নতুন করে আন্দোলনের রাস্তায় হেঁটে পৃথক রাজ্যের দাবি আদায় করা যে কঠিন হবে, তেমনটাই মনে করছেন মুখ্যমন্ত্রী।
`শান্তি বজায় রাখা কেন্দ্রের দায়িত্ব`
পাহাড়ে অশান্তির আবহ তৈরি হচ্ছে। ইতিমধ্যে পাহাড়ের জন্য কেন্দ্রীয় বাহিনী চেয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের কাছে চিঠি দিয়েছে রাজ্য। এ দিন মুখ্যমন্ত্রী পাহাড়ের আইন-শৃঙ্খলা বজায় রাখার দায় চাপিয়েছেন কেন্দ্রের ওপর। তাঁর কথায়,"শান্তি বজায় রাখা কেন্দ্রেরও দায়িত্ব।" মোর্চা নেতাদের দিল্লিতে ডেকে দার্জিলিংকে কেন্দ্র শাসিত অঞ্চল স্বীকৃতি দেওয়ার আশ্বাস দেওয়া হয়েছিল। ফলে পাহাড়ে অশান্তি হলে তার দায় যে কেন্দ্রেরও বর্তায় তাই ইঙ্গিত করতে চেয়েছেন তিনি।
`ভারত ভেঙে টুকরো করতে চায়`
ইউপিএ নেই তৃণমূল। ফলে কেন্দ্র সরকারের সমালোচনায় মুখর হতে কোনও রাজ্যনৈতিক বাধা নেই তৃণমূল নেত্রীর। এ দিন মহাকরণে দাঁড়িয়ে তেলেঙ্গানা ইস্যুতে কেন্দ্রকে এক হাত নিলেন মমতা। প্রশ্ন তুললেন, "লোকসভা ভোটের আগে তেলেঙ্গানা কেন তৈরি হল?" এই সিদ্ধান্তে ভারত ভেঙে টুকরো করতে চেয়ে কংগ্রেস `দায়িত্বজ্ঞানহীন` কাজ করেছেন বলে মন্তব্য করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।



First Published: Wednesday, July 31, 2013 - 17:06


comments powered by Disqus