বিধানসভায় তাণ্ডব: রাজ্যপালের দ্বারস্থ কংগ্রেস

বিধানসভায় কলঙ্কজনক তাণ্ডবের কড়া সমালোচনা করল কংগ্রেস। বিধানসভার ভিতরেও বিধায়কদেরও নিরাপত্তা নেই, এই মর্মে রাজ্যপালের কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন তাঁরা। কংগ্রেস পরিষদীয় দলের অভিযোগ, যেভাবে বিধানসভার মধ্যে আক্রান্ত হলেন বিধায়করা তার  থেকেই স্পষ্ট রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি কতটা শোচনীয়।  

Updated: Dec 11, 2012, 09:03 PM IST

বিধানসভায় কলঙ্কজনক তাণ্ডবের কড়া সমালোচনা করল কংগ্রেস। বিধানসভার ভিতরেও বিধায়কদেরও নিরাপত্তা নেই, এই মর্মে রাজ্যপালের কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন তাঁরা। কংগ্রেস পরিষদীয় দলের অভিযোগ, যেভাবে বিধানসভার মধ্যে আক্রান্ত হলেন বিধায়করা তার  থেকেই স্পষ্ট রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি কতটা শোচনীয়।  
বিধানসভায় কলঙ্কজনক অধ্যায়। বিধানসভার মধ্যেই আক্রান্ত হলেন বিরোধীদলের বিধায়করা। মাটিতে ফেলে মারা হল সিপিআইএমের বিধায়ক দেবলীনা হেমব্রমকে। মাথা ফাটল গৌরাঙ্গ চট্টোপাধ্যায়ের। বিধানসভার মধ্যে যখন এই ঘটনা ঘটছে, তখন নিজেদের আসনে চুপ করে বসেছিলেন কংগ্রেস বিধায়করা। একসময় স্লোগান দিতে দিতে ওয়াকআউট করেন। গোটা ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছে কংগ্রেস। বিধানসভা থেকে বেরিয়ে আসার সময় কংগ্রেস পরিষদীয় দলনেতা মানস ভুঁইয়া বলেন, "সরকারে যাঁরা রয়েছেন তাঁদের সহিষ্ণু হতে হয়। ধৈর্য হাড়ানো উচিৎ নয়।"
 
এরপরই রাজভবনে ছুটে যান কংগ্রেস পরিষদীয় দলের নেতারা। রাজ্যপালের কাছে তাঁরা অভিযোগ করেন বিধানসভার মধ্যেও বিধায়কদের নিরাপত্তা নেই। রাজ্যপালের হস্তক্ষেপ দাবি করেন তাঁরা। রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করার পর রাজভবনের বাইরে মানস ভুঁইয়া জানান, "রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর বিষয়টি নিয়ে বৈঠক ডাকা উচিৎ।" সেই বৈঠকে সবকটি রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিদের ডাকার দাবি জানান মানস বাবু।
 
সদ্য তৃণমূলের সঙ্গে সম্পর্ক ছেদ হয়েছে কংগ্রেসের। রাজ্যে এখন তারা অন্যতম বিরোধী দল। স্বাভাবিকভাবে এই ঘটনা থেকে রাজনৈতিক ফায়দা নিতে যে কংগ্রেস চাইবে, তাতে সন্দেহ নেই। তবে যখন বিধানসভার মধ্যে এভাবে মারপিটের ঘটনা ঘটছে, আক্রান্ত হচ্ছেন বিরোধী বিধায়করা, সেসময়ও বাধা দিতে না গিয়ে কেন কংগ্রেস বিধায়করা নিজেদের আসনে চুপটি করে বসে রইলেন তানিয়েও কিন্তু প্রশ্ন উঠছে।