সুচিত্রার পারলৌকিক ক্রিয়াতেও বজায় রইল আড়াল

সুচিত্রার পারলৌকিক ক্রিয়াতেও বজায় রইল আড়াল

সুচিত্রার পারলৌকিক ক্রিয়াতেও বজায় রইল আড়াল একান্তে মায়ের পারলৌকিক কাজ সারলেন মুনমুন সেন। যে মিথ, যে কৌতূহল ছিল মহানায়িকাকে ঘিরে, শেষ কাজেও সেই অপার আগ্রহ ও কৌতূহল রয়ে গেল সুচিত্রা ভক্তদের মধ্যে। শ্রাদ্ধানুষ্ঠানে একান্ত পরিচিত ছাড়া আর কারও ঢোকার অনুমতি মিলল না।

জীবনের শেষ কয়েকটা দশক তাঁর কেটেছে একেবারে লোকচক্ষুর অন্তরালে। সেই সময় তাঁর সঙ্গী ছিল শ্রী রামকৃষ্ণ, সারদা মা ও বিবেকানন্দের চিন্তাভাবনা। আর সোমবার তাঁর গুরু বীরেশ্বরানন্দজির ছবিকে সামনে রেখেই হলো সুচিত্রা সেনের পারলৌকিক কাজ। সাদা গোলাপ ও রজনীগন্ধার মাঝখানে অজস্র লাল গোলাপে তৈরি মালা গলায় মহানায়িকার সেই হাসিমাখা মুখ। দুই মেয়ে রিয়া, রাইমাকে নিয়ে পারলৌকিক কাজ করলেন মুনমুন সেন।

নিকট বন্ধু, গুটিকয়েক আত্মীয় ছাড়া শ্রাদ্ধানুষ্ঠানে আর কারও প্রবেশের অনুমতি ছিল না। বাড়ির ছাদে সকাল দশটা নাগাদ শুরু হয় কাজ সকালেই মুখ্যমন্ত্রী পাঠিয়েছিলেন ফুল। শ্রাদ্ধানুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী সুব্রত মুখার্জি।

পারলৌকিক কাজ শেষে মুনমুন সকলের হাতে মিষ্টি তুলে দেন। বাড়ির বাইরেই ফুল ও ধূপে মহানায়িকাকে শ্রদ্ধা জানালেন অসংখ্য অনুরাগী।

First Published: Monday, January 20, 2014, 23:50


comments powered by Disqus