শর্ট স্ট্রিট কাণ্ডের জেরে ওসি বদল, নতুন ওসি গুণ্ডাদমন শাখার অরুণ দে

Last Updated: Tuesday, November 19, 2013 - 12:19

শর্ট স্ট্রিটে গুলি চালানোর ঘটনায় আগেই ক্লোজ করা হয়েছিল শেক্সপিয়ার সরণী থানার তদন্তকারি অফিসারকে। এবার সরানো হল থানার অফিসার ইনচার্জ পীযূষ কুণ্ডুকে। শর্ট স্ট্রিট কাণ্ডে ডিসি সাউথের রিপোর্টের পরিপ্রেক্ষিতেই ওসিকে সরানোর সিদ্ধান্ত বলে মনে করা হচ্ছে।
পীযূষ কুণ্ডুর বদলে শেক্সপিয়ার সরণী থানার নতুন ওসি হিসেবে দায়িত্ব নিলেন কলকাতা পুলিসের গুণ্ডাদমন শাখার ওসি অরুণ দে। সোমবার রাতেই তিনি থানায় গিয়ে নিজের কার্জভার বুঝে নেন। কথা বলেন থানার অন্যান্য অফিসারদের সঙ্গে। শর্টস্ট্রিট কাণ্ডে অভিযুক্তদের সঙ্গে পুলিশের একাংশের যোগসাজশের ছায়া আগেই দেখেছে লালবাজার৷
প্রসঙ্গত, গত ১৯ নভেম্বর কলকাতার পুলিস কমিশনারের বাড়ির সামেন গুলি চলে। কলকাতার প্রাণকেন্দ্রে , সম্ভ্রান্ত এলাকায় ১৭ কাঠা জমি। জমিতে কিন্ডারগার্টেন স্কুল চালান এক মহিলা। জমির মালিকানা নিয়ে আইনি বিবাদ দীর্ঘদিনের। সেই বিবাদের জেরেই ভোর রাতে হামলা। আত্মরক্ষায় গুলি। গুলিতে নিহত হন দুজন। আহত হন চারজন। গ্রেফতার হন ১২ জন।
হমালার ঘটনায়, স্কুলের প্রধান শিক্ষিকার অভিযোগ ছিল ভোর রাতে সম্পত্তির দখল নিতে দুষ্কৃতীদের পাঠায় রিয়াল এসেস্ট সংস্থা রিটম্যান গোষ্ঠীর কর্ণধার পরাগ মজমুদার। প্রধান শিক্ষিকা মমতা আগরওয়াল চক্রান্তের অভিযোগ তুলেছিলেন ইস্পাত সংস্থা কনকাস্ট স্টিলের কর্ণধার সঞ্জয় সুরেখার বিরুদ্ধেও।হামলা এবং চক্রান্তের গোটা অভিযোগটাই ভিত্তিহীন বলে মন্তব্য রিয়েল এসেস্ট সংস্থার কর্ণধারের।
হামলার ঘটনায় অভিযোগ ছিল সঞ্জয় সুরেখার বিরুদ্ধেও। তার গলায় আবার ভিন্ন সুর।
কলকাতা কর্পোরেশনের মিউটেশন সার্টিফিকেটে সঞ্জয় সুরেখা ও স্বপ্না সুরেখাকেই জমির মালিক হিসাবে দেখানো হয়েছে।
তবে জমির মালিকানা সংক্রান্ত বিতর্ক নিয়ে ২০১০ সাল থেকেই কলকাতা হাইকোর্ট ও দেওয়ানি আদালতে চলছে একাধিক মামলা।



First Published: Tuesday, November 19, 2013 - 12:22


comments powered by Disqus