জমি অধিগ্রহণ আইনকে কেন্দ্র করে উত্তাল বিধানসভা: ওয়াকআউট করল বিরোধীরা

জমি অধিগ্রহণ আইনের একটি সংশোধনী বিলকে কেন্দ্র করে উত্তাল হয়ে উঠল বিধানসভা। মুখ্যমন্ত্রীর দফতরের বিল হওয়া সত্ত্বেও কেন তিনি গরহাজির সেই প্রশ্ন তুলে সভা থেকে ওয়াকআউট করে বিরোধীরা। তাঁদের অভিযোগ ইচ্ছাকৃতভাবে বিধানসভাকে এড়িয়ে যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী। যদিও সরকার পক্ষের দাবি, বিল পেশের সময় মুখ্যমন্ত্রীর না থাকা কোনও পরিষদীয় রীতিনীতির পরিপন্থী নয়। 

Updated: Dec 15, 2011, 10:32 PM IST

জমি অধিগ্রহণ আইনের একটি সংশোধনী বিলকে কেন্দ্র করে উত্তাল হয়ে উঠল বিধানসভা। মুখ্যমন্ত্রীর দফতরের বিল হওয়া সত্ত্বেও কেন তিনি গরহাজির সেই প্রশ্ন তুলে সভা থেকে ওয়াকআউট করে বিরোধীরা। তাঁদের অভিযোগ ইচ্ছাকৃতভাবে বিধানসভাকে এড়িয়ে যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী। যদিও সরকার পক্ষের দাবি, বিল পেশের সময় মুখ্যমন্ত্রীর না থাকা কোনও পরিষদীয় রীতিনীতির পরিপন্থী নয়। 

বিধানসভার চলতি শীতকালীন অধিবেশনে জমি অধিগ্রহণ সংক্রান্ত দুটি গুরুত্বপূর্ণ বিল আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। তারমধ্যে জমি অধিগ্রহণ সংশোধনী বিলটি বৃহস্পতিবার পেশ করা হয় বিধানসভায়। বিলটি মুখ্যমন্ত্রীর দফতরের হলেও বিধানসভার দ্বিতীয়ার্ধে উপস্থিত ছিলেন না মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিলটি পেশ করেন পরিষদীয় মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। সরকারের এই সিদ্ধান্তের তীব্র বিরোধিতা করে সভায় অংশ না নিয়ে ওয়াকআউট করেন বিরোধীরা।

অন্যদিকে সরকারের দাবি, যে সমস্ত জমিদাতারা জমি দিয়েও টাকা পাননি এই নতুন আইনের ফলে তাঁরা তাঁদের প্রাপ্য অর্থ পাবেন। গত ২০ বছরে এরকম অন্তত ২৫ হাজার জমি দাতার থেকে জমি নিয়ে টাকা দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ তুলেছে সরকারপক্ষ। যদিও সরকারপক্ষের এই অভিযোগ খারিজ করেছে বিরোধীরা।