দায়িত্ব গ্রহণ না করে ছুটিতে পচনন্দা

Last Updated: Friday, February 15, 2013 - 21:21

কাজে যোগ না দিয়ে ১৫ দিনের ছুটিতে গেলেন আর কে পচনন্দা। গতকাল, পুলিস কমিশনারের পদ থেকে অপসারণের পর  ভেঙে পড়েন তিনি। মহাকরণ সূত্রে খবর, ঘনিষ্ঠ মহলে রাজ্য ছাড়ার ইচ্ছাও প্রকাশ করেন। এরপরই,  ছুটির আবেদন করেন সরকারের কাছে।  নতুন পদে যোগ  না দিয়ে আপাতত কিছুদিনের জন্য অন্তরালে চলে গেলেন প্রাক্তন নগরপাল। 
বৃহস্পতিবার, দিঘা থেকে ফিরে গার্ডেনরিচ-কাণ্ডে তাঁর ক্ষোভের কথা প্রকাশ্যেই জানিয়ে দেন মুখ্যমন্ত্রী। মুখ্যসচিব-স্বরাষ্ট্রসচিবের সঙ্গে বৈঠকে কলকাতার পুলিস কমিশনারের পদ থেকে আর কে পচনন্দাকে সরিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তিনি।
বৃহস্পতিবার নিহত পুলিসকর্মী তাপস চৌধুরীর বাড়িতে গিয়েই গার্ডেনরিচ-কাণ্ডের তদন্তে অসন্তোষ প্রকাশ করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। তারপরই, মহাকরণ- লালবাজারে রটে যায় পুলিস কমিশনারকে সরিয়ে দেওয়া হতে পারে। শেষ পর্যন্ত তাই হয়। আর কে পচনন্দা সহ পাঁচজন পুলিস আধিকারিককে বদলির নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী।
মহাকরণ সূত্রে খবর, অপসারণের সিদ্ধান্তের কথা জানতে পেরেই ভেঙে পড়েন আর কে পচনন্দা। ঘনিষ্ঠ মহলে জানান, এ রাজ্যে আর থাকতে চান না তিনি। পরে, তাঁকে বোঝানো হলে ছুটি চেয়ে সরকারকে চিঠি দেন প্রাক্তন পুলিস কমিশনার। সেই চিঠিতে অবশ্য রাজ্য ছাড়ার ইচ্ছার কথা উল্লেখ না করে ছুটি মঞ্জুরের জন্য আবেদন করেন । 
অন্যরা নতুন দায়িত্ব গ্রহণ করলেও আর কে পচনন্দা এখনও তা করেননি। বৃহস্পতিবারই, নতুন পুলিস কমিশনার সুরজিত্‍ করপুরকায়স্থকে দায়িত্ব বুঝিয়ে দিলেও ডিরেক্টর সিকিউরিটি ও মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তা সংক্রান্ত নতুন কার্যভার গ্রহণ না করেই ছুটিতে গেলেন প্রাক্তন নগরপাল। যদিও, স্বরাষ্ট্র দফতরের দাবি, বিদেশে যাওয়ার জন্য বদলির আগেই ছুটির আবেদন করেছিলেন তিনি। আর কে পচনন্দাকে তাঁর পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ায় ক্ষোভ দেখা দিয়েছে পুলিসমহলে। উঠে এসেছে একাধিক প্রশ্ন।
তৃণমূল নেতাদের নির্দেশে কাজ না করাতেই কি সরে যেতে হল আর কে পচনন্দাকে? প্রশ্ন উঠেছে, গার্ডেনরিচের ঘটনার তদন্তের দায়িত্ব কেন দেওয়া হল সিআইডিকে? তবে, কি কলকাতা পুলিসের গোয়েন্দা বিভাগের ওপর আস্থা রাখতে পারলেন না মুখ্যমন্ত্রী? নাকি, গার্ডেনরিচ-কাণ্ডে শাসকদলের দিকে অভিযোগের আঙুল ওঠায় সাধারণ মানুষের নজর ঘোরাতেই পুলিস কমিশনারকে সরিয়ে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী?



First Published: Friday, February 15, 2013 - 21:21


comments powered by Disqus