পঞ্চায়েত নির্বাচনের জট কাটলেও আদালতের পথ বন্ধ করছে না কমিশন

Last Updated: Tuesday, May 14, 2013 - 10:37

পঞ্চায়েত জটিলতা কাটাতে হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চের রায়কে স্বাগত জানিয়েছে রাজ্য সরকার। সেইসঙ্গেই দীর্ঘ প্রতীক্ষিত ভোটের প্রস্তুতি শুরু হয়ে গেল দুই শিবিরেই।
পঞ্চায়েত ভোট নিয়ে ডিভিশন বেঞ্চের রায় মেনে ভোট করানোর পথে হাঁটলেও আদালতের রাস্তা পুরোপুরি বন্ধ করতে চাইছে না কমিশন। কমিশন মনে করছে, সিঙ্গল বেঞ্চে পঞ্চায়েত আইনের বিয়াল্লিশ নম্বর ধারা এবং রাজ্য নির্বাচন কমিশন আইনের আট নম্বর ধারা নিয়ে তারা আবেদন জানিয়েছিল। ডিভিশন বেঞ্চের আজকের রায় সেই দুটি প্রসঙ্গ নিয়ে কোনও মন্তব্য করেনি। সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে ওই দুটি ক্ষেত্রে কী হবে তা জানতে চেয়ে আইনি লড়াইয়ের পথে যাওয়ার ভাবনা চিন্তা করছে কমিশন।
পাশাপাশি আদালতের নির্দেশমতো পনেরোই জুলাইয়ের মধ্যে ভোট প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার পরিকল্পনা নিয়েই এগোচ্ছে রাজ্য নির্বাচন কমিশন। প্রাথমিকভাবে জুলাইয়ের আগে ভোট না করার কথাই ভাবছে কমিশন। তিনদফা নির্বাচনের প্রতি দফায় চারদিনের তফাত রাখার ভাবনা রয়েছে কমিশনের। পরিকল্পনা রয়েছে শেষ পর্বের নির্বাচনের দুদিন পর ফল ঘোষণার।  তবে আদালতের নির্দেশমতো সমস্ত বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে রাজ্য সরকারের সঙ্গে। রাজ্য সরকারের তরফে আলোচনার দিন জানানো হলে কমিশনও জেলা বিন্যাস, নির্বাচনের দিন নিয়ে তাদের পরিকল্পনার কথা রাজ্যকে জানাবে।
আগামিকালই রাজ্য সরকারের কাছে ভোটের সম্ভাব্য নির্ঘণ্টের প্রস্তাব নিয়ে যাচ্ছে রাজ্য নির্বাচন কমিশন। কমিশন চাইছে ভোট হোক ২,৬ এবং ১০ এপ্রিল। ভোট গণনার দিন ধার্য হয়েছে ১৩ এপ্রিল। বৈঠকে বসছে রাজ্য নির্বাচন কমিশন। এ দিন আদালতের রায়কে মেনে নিয়েই অবস্থান থেকে সরে এসেছে রাজ্য। কমিশনের দাবি অনুযায়ী, তিন দফায় ভোট করায় সায় দিয়েছে রাজ্য সরকার। তিন দফায় নির্বাচন করতে কোনও আপত্তি নেই বলেই জানিয়েছেন পঞ্চায়েতমন্ত্রী সুব্রত মুখার্জি।
মঙ্গলবার হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চে হার হল রাজ্য নির্বাচন কমিশনের। কেন্দ্রীয় বাহিনী ছাড়াই ভোট করার নির্দেশ দেয় কলকাতা হাইকোর্ট। তিন দফায় পঞ্চায়েত ভোট সিঙ্গল বেঞ্চের এই নির্দেশ বহাল রেখেছে ডিভিশন বেঞ্চ। কমিশনের সঙ্গে আলোচনা করে রাজ্য সরকারকেই দিন ঘোষণা করতে হবে বলে জানিয়েছে আদালত। নির্দেশ এসেছে, জুন মাসের মধ্যে ভোট করতে হবে। ১৫ জুলাইরে মধ্যে ভোটের ফল ঘোষণার নির্দেশ দেওয়া হয়ছে।
সাধরণ বুথে একজন করে সশস্ত্র বাহিনী থাকবে। অতি স্পর্শকাতর বুথে তিন জন করে সশ্রস্ত পুলিস থাকবে। থাকবে দু'জন লাঠিধারি পুলিসও। প্রয়োজনে ভিন রাজ্য থেকে ভোট করা যাবে বলে জানিয়ছেন আদালত। তারপরও প্রয়োজন হলে কেন্দ্রীয় বাহিনী চাইতে পারে রাজ্য। এমনই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে ডিভিশন বেঞ্চের তরফে।
ডিভিশন বেঞ্চের এই রায়কে স্বাগত জানিয়েছেন পঞ্চায়েতমন্ত্রী সুব্রত মুখার্জি। তিনি ২৪ ঘণ্টাকে টেলিফোনে জানিয়েছেন, "এই রায় সব ষড়যন্ত্র ভেস্তে দিয়েছে।" সেইসঙ্গে ডিভিশন বেঞ্চের রায়কে মেনে নিয়ে তিন দফায় নির্বাচন করার পক্ষেই সায় দিয়ছেন মন্ত্রী। সুব্রত বাবু স্পষ্ট করেছেন, কোর্টের দাবি মেনে পর্যবেক্ষকদের তালিকাও নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে জমা দিতে প্রস্তুত তাঁরা। জানা গিয়েছে, আজকের রায়কে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টে যাচ্ছে না কমিশন।



First Published: Tuesday, May 14, 2013 - 21:52


comments powered by Disqus