প্রেসিডেন্সি হামলা: জামিন পেলেন পার্থ, তমোঘ্ন

এপ্রিল ১০-এ তৃণমূল ছাত্র পরিষদের ঝান্ডা হাতে শতাব্দী প্রাচীন প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ে হামলা চালায় একদল দুষ্কৃতী। রাজ্য তৃণমুল নেতৃত্ব দলীয় উপস্থিতি অস্বিকার করলেও ২৪ ঘণ্টার হাতে আসা এক্সক্লুসিভ ছবিতে একাধিক তৃণমূল ও টিএমসিপি নেতাকে দেখা গিয়েছে। তাঁদের মধ্যে ছিলেন পার্থ বসু। কলকাতা পুরসভার ৪০ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর। বিধানসভার ডেপুটি স্পিকার সোনালি গুহর স্বামী। তমোঘ্ন ঘোষও ওই দলের পুরভাগেই ছিলেন।

Updated: Apr 17, 2013, 03:04 PM IST

আদালতে গিয়ে জামিন নিলেন প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয় হামলা কাণ্ডে অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা পার্থ বসু এবং টিএমসিপি নেতা তমোঘ্ন ঘোষ।
এপ্রিল ১০-এ তৃণমূল ছাত্র পরিষদের ঝান্ডা হাতে শতাব্দী প্রাচীন প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ে হামলা চালায় একদল দুষ্কৃতী। রাজ্য তৃণমুল নেতৃত্ব দলীয় উপস্থিতি অস্বিকার করলেও ২৪ ঘণ্টার হাতে আসা এক্সক্লুসিভ ছবিতে একাধিক তৃণমূল ও টিএমসিপি নেতাকে দেখা গিয়েছে। তাঁদের মধ্যে ছিলেন পার্থ বসু। কলকাতা পুরসভার ৪০ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর। বিধানসভার ডেপুটি স্পিকার সোনালি গুহর স্বামী। তমোঘ্ন ঘোষও ওই দলের পুরভাগেই ছিলেন।
ঘটনাস্থলে দেখা গিয়েছিল টিএমসিপি-র সম্পাদকমণ্ডলীর দুই সদস্য কৈলাশ মিশ্র ও তথাগত সাহাকে। তৃণমূল ছাত্র পরিষদের তরফে উমেশচন্দ্র কলেজ দেখার দায়িত্বে কৈলাস, কলকাতা ও প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্বে তথাগত। ছিলেন সুরেন্দ্রনাথ সান্ধ্য কলেজের টিএমসিপি নেতা সুলতানও। রাজাবাজার এলাকার বাসিন্দা সুলতানের বিরুদ্ধে মধ্য কলকাতার বিভিন্ন থানায় একাধিক অভিযোগ রয়েছে। ২০১২-র ২৮ এপ্রিল তৃণমূল ছাত্র পরিষদ কর্মী আকিব জাভেদকে খুনের চেষ্টার অভিযোগ আছে তার বিরুদ্ধে। রয়েছে বেআইনি ভাবে অস্ত্র রাখার অভিযোগও।