স্কুলে পুরুষ শিক্ষক না রাখা কোনও সমাধান নয় : শিক্ষামন্ত্রী

কারমেল স্কুলে ছাত্রীর যৌন নিগ্রহের ঘটনায় দোষীর কঠোর শাস্তির আশ্বাস দিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। একইসঙ্গে তাঁর দাবি, স্কুলে শিক্ষক না রাখা কোনও সমাধান নয়। বরং স্কুল কর্তৃপক্ষকে তাদের গাফিলতি খতিয়ে দেখতে হবে।

Updated: Feb 9, 2018, 05:23 PM IST
স্কুলে পুরুষ শিক্ষক না রাখা কোনও সমাধান নয় : শিক্ষামন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদন : কারমেল স্কুলে ছাত্রীর যৌন নিগ্রহের ঘটনায় দোষীর কঠোর শাস্তির আশ্বাস দিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। একইসঙ্গে তাঁর দাবি, স্কুলে শিক্ষক না রাখা কোনও সমাধান নয়। বরং স্কুল কর্তৃপক্ষকে তাদের গাফিলতি খতিয়ে দেখতে হবে।

দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্রীর যৌননিগ্রহের অভিযোগকে কেন্দ্র করে শুক্রবার সকাল থেকে উত্তাল কারমেল স্কুল। অভিভাবকদের অভিযোগ, স্কুলের পরিকাঠামোগত গাফিলতি ছিল, তারজন্যই এঘটনা। স্কুলে সিসিটিভি-র নজরদারিও ঠিকমত নেই। একইসঙ্গে তাঁদের দাবি, কোনওভাবেই স্কুলে শিক্ষক রাখা যাবে না। ক্লাস পিছু একজন করে পর্যবেক্ষক রাখতে হবে।

যদিও শিক্ষামন্ত্রীর সাফ বক্তব্য, "স্কুলে পুরুষ শিক্ষক না রাখলেই এই ঘটনার সমাধান হয়ে যাবে না। স্কুল কর্তৃপক্ষকে অবিলম্বে নিজেদের গাফিলতি খতিয়ে দেখতে হবে।" একইসঙ্গে পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, দ্বিতীয় শ্রেণির শিশুকে যৌননিগ্রহ সাংঘাতিক ঘটনা। এঘটনা কোনওভাবেই বরদাস্ত করা হবে না। দোষ প্রমাণিত হলে অভিযুক্ত কঠোর শাস্তি পাবে। পাশাপাশি, দীর্ঘদিন ধরে এই ঘটনা চললেও স্কুল প্রথমেই কেন কোনও ব্যবস্থা নেয়নি? সেই প্রশ্নও তুলেছেন তিনি।

আরও পড়ুন, 'এত ছোট শিশুর শ্লীলতাহানির প্রশ্নই ওঠে না', দাবি কারমেলে যৌননিগ্রহে ধৃত নৃত্যশিক্ষকের

অন্যদিকে স্কুল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, স্কুলের বিভিন্ন জায়গাতেই সিসিটিভি রয়েছে। মেরামতির জন্য বর্তমানে ৭টি সিসিটিভি অকেজো। একইসঙ্গে নৃত্যশিক্ষিকা নিয়োগ করা হয়েছে বলেও জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।