সারদা কাণ্ডে জড়াল দুই সরকারি আধিকারিকের নাম

Last Updated: Wednesday, May 1, 2013 - 17:27

সারদা কাণ্ডে সুদীপ্ত সেন ও দেবযানী মুখার্জিকে জেরা করে উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য। দু'জন নতুন ব্যক্তির নাম উঠে এসেছে তদন্তে। এর ভিত্তিতেই গণেশ দে ও অঞ্জন ভট্টাচার্যকে জেরা শুরু করে গোয়েন্দারা। বুধবার প্রায় আধ ঘণ্টা তাঁদের জেরা করা হয়। গণেশ দে প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীর আপ্তসহায়ক। পরিচয় জানা গিয়েছে অঞ্জন বাবুরও। তিনি হিটকোর প্রাক্তন পিআরও।
এ দিনের জেরার পর পুলিস সুত্রে জানা গিয়েছে, ভরাডুবির আঁচ আগেই পেয়েছিল সারদাকর্তা সুদীপ্ত সেন। ফেব্রুয়ারিতে সল্টলেকে সংস্থার এজেন্টের সঙ্গে মিটিং হয় তাঁর। সেই মিটিংয়ে এজেন্টদের সঙ্গে বাগবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন তিনি। এজেন্টরা অভিযোগ তোলেন চেক বাউন্সের। কাজ করতে অসুবিধা হচ্ছে বলেও জানান তাঁরা। এই নিয়েই সুদীপ্তর সঙ্গে ঝামেলা শুরু হয়। সে বারের মতো পরিস্থিতে সামাল দেন দেবযানী মুখার্জি। ১০ দিন পর ফের সল্টলেকে মিটিং হয়। সেখানেও এজেন্টরা সুদিপ্ত সেনের সামনে ক্ষোভ উগড়ে দেন। এমনকী, জুতো ছুঁড়ে মারার হুমকি দেওয়া হয় সংস্থার সর্বময় কর্তাকে। এজেন্টরা গালিগালাজ করে সুদীপ্তকে। অবস্থা বেগতিক দেখে ১৬ এপ্রিলের মধ্যে সমস্যা মেটানোর আশ্বাস দেন সুদীপ্ত। কিন্তু তার আগেই গা ঢাকা দেন তিনি।
জেরায় সুদীপ্ত সেন জানিয়েছিলেন, এ রাজ্যে ব্যবসা করতে গিয়ে অনেক পুলিসকর্তাকেও তুষ্ট করতে হয়েছে তাঁকে। পুলিসকর্তাদের সঙ্গে সারদার যোগের সেই বিষয়টিই এবার প্রকাশ্যে এল। গোয়েন্দাদের দাবি, জেরায় সুদীপ্ত সেন জানিয়েছেন, বারুইপুর থানার আইসি সুব্রত কংসবণিককে বছরখানেক আগে একটি দামি গাড়ি উপহার দেন তিনি। গাড়ির নম্বর WB-20U640। পুলিসকর্তাকে উপহার দেওয়া গাড়িটি বাজেয়াপ্ত করেছে ইলেকট্রনিক্স কমপ্লেক্স থানার পুলিস।
এই ঘটনার তদন্তে আজ নিউটাউন থানায় যান দক্ষিণ ২৪ পরগনার অতিরিক্ত পুলিস সুপার কঙ্করপ্রসাদ বারুই। সুদীপ্ত সেনকে জেরা করার পাশাপাশি বিধাননগর পুলিসের গোয়েন্দাদের সঙ্গেও কথা বলেন তিনি। এদিকে সুদীপ্ত সেনের বিরুদ্ধে নতুন করে দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলায় আত্মহত্যায় প্ররোচনা এবং প্রতারণার চারটি অভিযোগ জমা পড়েছে। সারদা কর্তার বিরুদ্ধে বারুইপুর এবং সোনারপুর থানায় ৩০ কোটি টাকা প্রতারণার অভিযোগ এনেছেন এজেন্টরা। আজ নিউটাউন থানায় এবিষয়েও সুদীপ্ত সেনকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন দক্ষিণ ২৪ পরগনার অতিরিক্ত পুলিস সুপার।  
সারদা কর্তা সুদীপ্ত সেনের বয়ান আদপেও কতটা সত্যি তা খতিয়ে দেখতে এ দিন জেরা তাঁকে করে বিধাননগর থানার পুলিস। বুধবার সারদা গোষ্ঠীর এক কর্মীর গোপন জবানবন্দি নেওয়া হয় বিধাননগর আদালতে। এরপর আরও কয়েকজন কর্মীর গোপন জবানবন্দি নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে পুলিস।



First Published: Wednesday, May 1, 2013 - 21:36


comments powered by Disqus