আকাশচুম্বী ক্ষতির বহর কমাতেই বাড়ছে বাড়ছে, দাবি মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষের

Last Updated: Friday, October 18, 2013 - 09:54

মেট্রো রেলের যুক্তি, ক্ষতির বহর কমাতেই ভাড়া বাড়ানো অনিবার্য। কংগ্রসের অভিযোগ তৃণমূলের হাতে রেল থাকার সময়ে ভোট রাজনীতিই মেট্রোকে লোকসানের মধ্যে ফেলে দিয়েছে।
মেট্রো রেলের তরফে রীতিমতো পরিসংখ্যান দিয়ে জানানো হয়েছে, দীর্ঘদিন মেট্রোর ভাড়া না বাড়ানোয় আয়ের থেকে ব্যয় অনেক বেড়ে গেছে। 
 
দুহাজার নয়-দশ সালে মেট্রোর মোট আয় হয়েছিল ৮৮.৭১ কোটি টাকা। মোট ব্যয় ২১৮.৭৭ কোটি টাকা। ২০১০-২০১১ আয়ের পরিমাণ ১০৩.১৬ কোটি টাকা। ব্যয়- ২৩১.৮৫ কোটি টাকা।
 
দুহাজার এগারো বারো সালে আয়ের পরিমাণ বেড়ে হয়েছে ১০৭.১৪ কোটি টাকা। ব্যয় বেড়ে হয়েছিল ৩১১.৬৪ কোটি টাকা। ২০১২-২০১৩ সালে আয় হয়েছিল ১১৩.৫৭ কোটি টাকা। ব্যয় হয়েছিল ৩৭০.৭৭ কোটি টাকা।
 
এ তো গেল আয় ব্যয়ের হিসাব। এবার দেখে নেওয়া যাক মেট্রোয় যাত্রী ভাড়া থেকে আয় এবং বেতন বাবদ ব্যয়ের খতিয়ান।
 
২০০৯-২০১০ সালে মেট্রোয় যাত্রী ভাড়া থেকে আয় হয়েছিল ৭৩.৭৩ কোটি টাকা। বেতন বাবদ ব্যয়-৯২.৪৩ কোটি টাকা। ২০১০-২০১১ সালে যাত্রী ভাড়া বাবদ আয় ৮৬.৯৮ কোটি টাকা। বেতন বাবদ ব্যয় ১০১.১৬ কোটি টাকা। ২০১১-২০১২ সালে যাত্রী ভাড়া বাবদ আয় এবং বেতন বাবদ ব্যয় ছিল ৯১.৩৬ কোটি টাকা এবং ১১২.৭৯ কোটি টাকা।
দুহাজার বারো তেরো সালে ভাড়া বাবদ আয় ৯৬.৯৩ এবং বেতন বাবদ ব্যয়-১৩০.৮৯ কোটি টাকা।
ওই বছরের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত যাত্রী ভাড়া বাবদ আয় হয়েছিল ৪৬.৯৩ কোটি টাকা এবং ব্যয়- ৬১.১৪। ২০১৩- ২০১৪ সালে আয়ের পরিমাণ ৫৩.২৪ কোটি টাকা। বেতন বাবদ ব্যয়-৬৮.৭৮ কোটি টাকা।
আয়ের থেকে ব্যয় কীভাবে বাড়ল। অপারেশনাল রেসিওতে, প্রতি ১০০ টাকা আয় করতে গিয়ে কত টাকা ব্যয় করতে হচ্ছে?
দেখা যাচ্ছে ২০০৯-২০১০ সালে অপারেটিং রেসিও হচ্ছে ২৪৮।
২০১০-২০১১ বছরে তা কমে হচ্ছে ২২২৬.৩৩। ২০১১-২০১২ সালে ছিল ৩১১.৬৪। ২০১২-২০১৩ তা গিয়ে দাঁরায় ৩২৮.২৭।
দুহাজার বারো-তেরো সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৩৬৯.৫৩। ২০১৩-২০১৪ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কমে হয় ৩৫১.৪০।
 
দুহাজার বারো পর্যন্ত রেল দফতর ছিল তৃণমূলেরই হাতে। যে সময়ে মেট্রোর খরচ অনেকটাই বেড়েছে। কংগ্রেস বলছে তৃণমূল কংগ্রেসের সস্তা রাজনীতির কারণেই আজ সংকটের মুখে মেট্রো। তাই ভাড়া বাড়ানো প্রয়োজন বলে মনে করেছে কংগ্রেস।
এই অবস্থায় আগামী ১৮ তারিখ থেকে ভাড়া বাড়ার কথা ছিল। কিন্তু রেলপ্রতিমন্ত্রী
অধীর চৌধুরীর হস্তক্ষেপে ভাড়ার পুনর্বিন্যাস হচ্ছে। নতুন ভাড়া ঘোষণা হবে কালীপুজোর পর। 



First Published: Friday, October 18, 2013 - 09:54


comments powered by Disqus