সারদা কাণ্ড: এখনও বিজ্ঞপ্তিই হয়েনি মুখ্যমন্ত্রীর প্রতিশ্রুত তহবিলের

সারদা গোষ্ঠীর চিটফান্ডে টাকা রেখে প্রতারিত হয়েছেন রাজ্যের কয়েকলক্ষ মানুষ। ক্ষতিগ্রস্তদের টাকা ফেরত দিতে পাঁচশ কোটি টাকার বিশেষ তহবিল গঠনের কথা ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু দুমাসের বেশি সময় পেরিয়ে গেলেও, তহবিল গঠনের জন্য কোনও বিজ্ঞপ্তি জারি করেনি রাজ্যের অর্থ দফতর।

Updated: Jul 4, 2013, 09:17 PM IST

সারদা গোষ্ঠীর চিটফান্ডে টাকা রেখে প্রতারিত হয়েছেন রাজ্যের কয়েকলক্ষ মানুষ। ক্ষতিগ্রস্তদের টাকা ফেরত দিতে পাঁচশ কোটি টাকার বিশেষ তহবিল গঠনের কথা ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু দুমাসের বেশি সময় পেরিয়ে গেলেও, তহবিল গঠনের জন্য কোনও বিজ্ঞপ্তি জারি করেনি রাজ্যের অর্থ দফতর।
ফলে প্রতারিতরা আদৌ টাকা  ফেরত পাবেন কিনা, তা নিয়েই তৈরি হয়েছে অনিশ্চয়তা।চলতি বছরের এপ্রিল মাসে কোটি কোটি টাকা প্রতারণার দায়ে গ্রেফতার হন সারদা গোষ্ঠীর কর্ণধার সুদীপ্ত সেন এবং দেবযানী মুখোপাধ্যায়। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তাল হয়ে ওঠে গোটা রাজ্য। সর্বস্ব হারিয়ে আত্মঘাতী হন বেশ কয়েকজন সারদার আমানতকারী এবং এজেন্ট।
জেলায় জেলায় বিক্ষোভের জেরে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি সামলাতে রীতিমত হিমশিম খায় সরকার। এরপর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেন, সারদাকাণ্ডের তদন্তে বিচারবিভাগীয় কমিশন গঠন করবে রাজ্য। চিটফান্ডগুলির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে নতুন বিল আনার কথাও বলেন তিনি।  প্রতারিতদের টাকা ফেরত দিতে বিশেষ তহবিল গঠনেরও সিদ্ধান্ত নেয় সরকার।
পাঁচশ কোটি টাকার এই বিশেষ তহবিলের দেড়শো কোটি টাকা তামাকজাত দ্রব্যের ওপর কর বসিয়ে আদায় করা হবে বলে জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সবাইকে বেশি করে সিগারেট খাওয়ার পরামর্শও দিয়েছিলেন তিনি।
 
তবে বাকি সাড়ে ৩০০ কোটি টাকা কোথা থেকে আসবে তা স্পষ্ট করেননি মুখ্যমন্ত্রী। রাজ্যের অর্থ দফতর সূত্রে খবর, বিশেষ তহবিল গঠনের জন্য এখনও পর্যন্ত কোনও বিজ্ঞপ্তিই জারি করা হয়নি। সাড়ে তিনশ কোটি টাকা কোথা থেকে আসবে তাও জানে না  অর্থ দফতর। ইতিমধ্যেই কমিশনে কয়েক হাজার কোটি টাকার দাবি জানিয়ে অভিযোগ জমা দিয়েছেন প্রতারিতরা। কিন্তু কবে মিলবে সেই টাকা, আদৌ মিলবে কিনা, এনিয়েও রীতিমতো অনিশ্চয়তা  
 
কাদের ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে এবং তা কোন পদ্ধতিতে তা নিয়েও তৈরি হয়েছে জটিলতা। সব মিলিয়ে সারদা কাণ্ডের প্রতারিতদের ক্ষতিপূরণের গোটা প্রক্রিয়াই বিশ বাঁও জলে।