শ্যামল সেন কমিশনে লাখ অভিযোগের মধ্যে শুনানি মাত্র ছশোটির

রাজ্যের বিভিন্ন ভুঁইফোর সংস্থার বিরুদ্ধে অভিযোগ জানাতে রাজ্য সরকারের নির্দেশে তৈরি হয়েছে শ্যামল সেন কমিশন। বৃহস্পতিবার পর্যন্ত কমিশনে মোট দায়ের হওয়া অভিযোগের সংখ্যা দু`লক্ষ ছিয়ানব্বই হাজার চারশো অষ্টআশি। যার মধ্যে শুধু দক্ষিণবঙ্গের জন্য বিধাননগরের নিউটাউনের ফিনান্স সেন্টারে তৈরি হওয়া  কমিশনের অফিসে অভিযোগ জমা পড়েছে দু`লক্ষ ছিয়াশি হাজার ছশো তেইশটি।

Updated: May 17, 2013, 11:07 AM IST

প্রতি মিনিটে জমা পড়ছে প্রায় একশোরও বেশি অভিযোগপত্র। কিন্তু এই বিপুল সংখ্যক অভিযোগপত্র বাছাইয়ের কাজ কী আদৌ সম্ভব শ্যামল সেন কমিশনের পক্ষে? কাজটা যে দুঃসাধ্য, সেকথা মেনে নিচ্ছেন এজেন্ট ও আমানতকারীরা। তা সত্বেও টাকা ফেরতের আশায় প্রতিদিনই কমিশনের অভিযোগগ্রহণ কেন্দ্রে উপচে পড়ছে ভিড়। টাকা ফেরত নিয়েও সংশয়ে আমানতকারীরা।
সারদাগোষ্ঠী সহ রাজ্যের বিভিন্ন ভুঁইফোড় আর্থিক সংস্থার বিরুদ্ধে অভিযোগ জানাতে রাজ্য সরকারের নির্দেশে কাজ শুরু করেছে শ্যামল সেন কমিশন। প্রতিদিনই কমিশনের দফতরে জমা পড়ছে অভিযোগের পাহাড়।
 
বৃহস্পতিবার পর্যন্ত কমিশনে জমা পড়া  অভিযোগের সংখ্যা প্রায় তিন লক্ষের কাছাকাছি। শুধুমাত্র দক্ষিণবঙ্গেই অভিযোগ জমা পড়েছে ২ লক্ষ ৮৬ হাজার ৬২৩টি। আর উত্তরবঙ্গে অভিযোগ জমা পড়েছে ৯হাজার ৮৬৫টি। তবে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত মাত্র ৬০০টি অভিযোগের শুনানি হয়েছে কমিশনে।
 
কেউ এসেছেন জঙ্গলমহলের সূদূর গ্রাম থেকে। অনেকে আবার রওনা দিয়েছেন আগের রাতে। একটাই আশা, আমানতের টাকা যদি ফেরত পাওয়া যায়। তামাকজাত দ্রব্যের ওপর কর বসিয়ে তহবিল গড়ার ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। সেই তহবিলের ভবিষ্যত নিয়েও সন্দিহান স্বর্বস্ব হারানো আমানতকারীরা।