কঙ্কালকাণ্ড: বৈধতা নিয়ে মামলা সুশান্তর

দাসের বাঁধ কঙ্কালকাণ্ড মামলার বৈধতা নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করলেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী সুশান্ত ঘোষ। তাঁর আবেদন গ্রহণ করেছে আদালত। আগামিকাল এই মামলার শুনানি। এই ঘটনার কেস ডায়েরি আনার জন্য রাজ্য সরকারকে নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

Updated: Feb 11, 2013, 05:05 PM IST

দাসের বাঁধ কঙ্কালকাণ্ড মামলার বৈধতা নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করলেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী সুশান্ত ঘোষ। তাঁর আবেদন গ্রহণ করেছে আদালত। আগামিকাল এই মামলার শুনানি। এই ঘটনার কেস ডায়েরি আনার জন্য রাজ্য সরকারকে নির্দেশ দিয়েছে আদালত।
প্রসঙ্গত, কঙ্কালকাণ্ডের জেরে ছ মাসের বেশি জেলে থাকতে হয় রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রীকে।
দাসেরবাঁধ কঙ্কালকাণ্ড মামলার বৈধতা নিয়ে এবার কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করলেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী সুশান্ত ঘোষ। আজ তাঁর আবেদন গ্রহণ করেছে আদালত। আগামিকাল এই মামলার শুনানি। এই ঘটনার কেস ডায়েরি আনার জন্য রাজ্য সরকারকে নির্দেশ দিয়েছে আদালত।
জুন ২০১১-- পশ্চিম মেদিনীপুরের সিপিআইএম নেতা সুশান্ত ঘোষের বেনাচাপড়ার বাড়ির কাছ থেকে কঙ্কাল উদ্ধারকে কেন্দ্র করে উত্তাল হয়ে ওঠে রাজ্য রাজনীতি। রুজু করা হয় দাসের বাঁধ কঙ্কালকাণ্ড মামলা। 
২০১১ সালের অগাস্ট মাস।
ঘটনায় গ্রেফতার করা হয় প্রাক্তন মন্ত্রী সুশান্ত ঘোষকে। বিতর্ক তৈরি হয় সিপিআইএমের প্রাক্তন মন্ত্রীর গ্রেফতারের ঘটনায়। রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতেই এই মামলা কিনা তানিয়েও শুরু হয় জলঘোলা।  এগারোই অগাস্ট সুশান্ত ঘোষকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ভবানী ভবনে সিআইডির হেডকোয়ার্টারে নিয়ে আসা হয়। সিআইডির তিরিশজন তদন্তকারী অফিসার পাঁচটি দলে ভাগ হয়ে জেরা করে সুশান্ত ঘোষকে।  এরপর তাঁর অন্তবর্তী জামিনের আবেদন মঞ্জুর করে সুপ্রিম কোর্ট। দীর্ঘ প্রায় ছমাস পরে দুহাজার বারোর ফেব্রুয়ারিতে আলিপুর সংশোধনাগার থেকে মুক্তি পান  সুশান্ত ঘোষ।  এবার দাসের বাঁধ কঙ্কালকাণ্ড  মামলার  বৈধতা নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টে পাল্টা মামলা দায়ের করলেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী সুশান্ত ঘোষ। মামলার প্রক্রিয়া থেকে তদন্ত, এমনকী তাঁকে গ্রেফতার, পুরোটাই অবৈধ বলে অভিযোগ করেছেন সুশান্ত ঘোষ। সোমবার তাঁর আবেদন গ্রহণ করেছে আদালত। মঙ্গলবার এই মামলার শুনানিতে কেস ডায়েরি আনার জন্য রাজ্য সরকারকে নির্দেশ দিয়েছে আদালত।