এসএসকেএমে অগ্নিকান্ডে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ পুরমন্ত্রীর

এসএসকেএম হাসপাতালের অগ্নিকাণ্ডেও উঠে এল অন্তর্ঘাতের তত্ত্ব। গোটা ঘটনায় তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে স্বাস্থ্য দফতর। তদন্ত শুরুর আগেই পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের অভিযোগ, ষড়যন্ত্র করেই ডাক্তারদের রেস্টরুমে এসি বন্ধ করা হয়নি। আগ বাড়িয়ে করা এই মন্তব্যের জেরে তদন্ত আদৌ ঠিক পথে এগোবে কিনা, তা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে।

Updated: Nov 25, 2012, 09:48 AM IST

এসএসকেএম হাসপাতালের অগ্নিকাণ্ডেও উঠে এল অন্তর্ঘাতের তত্ত্ব। গোটা ঘটনায় তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে স্বাস্থ্য দফতর। তদন্ত শুরুর আগেই পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের অভিযোগ, ষড়যন্ত্র করেই ডাক্তারদের রেস্টরুমে এসি বন্ধ করা হয়নি। আগ বাড়িয়ে করা এই মন্তব্যের জেরে তদন্ত আদৌ ঠিক পথে এগোবে কিনা, তা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। এসএসকেএমের অগ্নিকাণ্ডকে বড় ঘটনা মানতে নারাজ সরকারের প্রতিনিধিরা। এক পা এগিয়ে পুরমন্ত্রীর অভিযোগ, অ্যানেক্স বিল্ডিংয়ের আগুন ছোট্ট ঘটনা। দর্শক টানতে তা নিয়ে বাড়াবাড়ি করছে সংবাদ মাধ্যমের একাংশ। যদিও দিনের শেষে ছোট ঘটনাই বড় হয়ে দাঁড়িয়েছে। 
এসএসকেএমের অ্যানেক্স বিল্ডিংয়ে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে স্বাস্থ্য দফতর। হাসপাতাল সুপারকে তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। সোমবার গঠিত হবে তদন্ত কমিটি। তবে অন্তর্ঘাত নিয়ে এখনই কোনও মন্তব্য করতে রাজি নন হাসপাতালের সুপার। শনিবার হাসপাতাল পরিদর্শনে আসা সরকারি প্রতিনিধিরা বলছেন এটি ছোট্ট ঘটনা। তাঁদের বয়ানেও অসঙ্গতি ধরা পড়েছে। যেখানে প্রত্যক্ষদর্শী থেকে হাসপাতাল সুপার এমনকি স্বাস্থ্যপ্রতিমন্ত্রী পর্যন্ত শিশুবিভাগ থেকে শিশুদের সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার কথা জানিয়েছেন, সেখানে একেবারে উল্টোকথা শোনা গিয়েছে পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের মুখে।
পুরমন্ত্রী নিজে বলছেন ছোট্ট ঘটনা। অথচ ঘটনার কথা মুখ্যমন্ত্রীকে জানানো মাত্রই সুরক্ষা নিশ্চিত করতে নির্দেশ দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। হাসপাতালের সব এসিতেই অটোকাটআউট লাগানোর নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তবে কী আগুন লাগল বলেই টনক নড়ল প্রশাসনের? এতদিন কেন এই সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। উঠছে সেই প্রশ্নও।  
নড়ে বসেছে প্রশাসন। হাসপাতালের সবকটি এসি মেসিনে অটো কাট সিস্টেম লাগানোর নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।  
রাজ্যে ক্ষমতায় আসার পরে একাধিক ঘটনাতেই ষড়যন্ত্রের অভিযোগ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী থেকে তারই মন্ত্রিসভার সদস্যরা। এসএসকেএমের ঘটনাতেও বজায় রইল সেই পরম্পরা।