সরকারের সঙ্গেই সুর মিলিয়ে সিবিআই তদন্তের বিরোধীতায় সুদীপ্ত সেন

Last Updated: Thursday, May 16, 2013 - 10:50

রাজ্য সরকারের মতোই সুদীপ্ত সেনও চান না সারদা চিটফান্ড কাণ্ডে তদন্ত করুক সিবিআই। শুধু তাই নয়। সুদীপ্ত সেনের ভরসার জায়গা রাজ্য সরকারের তৈরি করা স্পেশাল ইনভেস্টগেশন টিম এবং কমিশন। কলকাতা হাইকোর্টে হলফনামা জমা দিয়ে এমনই জানিয়েছেন সারদা কর্তা সুদীপ্ত সেন। হলফনামা জমা দিয়েছে সিবিআইও।সারদা কাণ্ডে সিবিআই তদন্তের বিরোধিতা করে একাধিকবার মুখ খুলতে দেখা গেছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। সরকারের সেই বক্তব্যই এবার ধরা পড়ল হাইকোর্টে পেশ হওয়া সারদা কর্তার হলফনামায়.  হলফনামায় সিবিআই তদন্তের বিরোধিতা করেছেন সুদীপ্ত সেন।
সিবিআই তদন্তের বিরোধিতায় যে যুক্তি তিনি হলফনামায় দিয়েছেন, তা হল, সারদা কর্তার দাবি রাজ্যে অধীন সিট বা স্পেশাল ইনভেস্টিগেশন টিমে যেসব আইপিএস অফিসার রয়েছেন সেইরকমই পদমর্যাদার আধিকারিক থাকেন সিবিআইয়ে। সেই কারণে আলাদা করে সিবিআই তদন্তের কোনও প্রয়োজনীয়তা নেই।  
এছাড়াও অন্যান্য যে বিষয়গুলি সুদীপ্ত সেন তাঁর হলফনামায় জানিয়েছেন তার মধ্যে অন্যতম হল, সারদাকর্তা নিঃশর্তভাবে তার সমস্ত সম্পত্তি, ব্যাঙ্কে গচ্ছিত টাকা আদালত বা কমিশনের কাছে জমা দিতে চেয়েছেন।
অনুরোধ জানিয়েছেন আসল আমানতকারীদের তালিকা তৈরির জন্য।  
সমস্ত সম্পত্তি বাজারদরে বিক্রি করে আমানতকারীদের টাকা ফেরত দেওয়ার কথা বলা হয়েছে হলফনামায়।
সারদা কর্তা হলফনামায় অনুরোধ জানিয়েছেন তাঁর বিরুদ্ধে আনা যাবতীয় অভিযোগ যেন সিট বা স্পেশাল ইনভেস্টিগেশন টিম তদন্ত করে.  আদালত বা কমিশনের নজরদারিতে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে সেই তদন্ত শেষ করার নির্দেশও যেন দেওয়া হয়।
তাঁর বিরুদ্ধে দায়ের করা যাবতীয় মামলার শুনানি এবং নিষ্পত্তি যেন  বিধাননগর আদালতেই হয় সেই অনুরোধও জানিয়েছেন সুদীপ্ত সেন।
অন্যদিকে বুধবার হাইকোর্টে হলফনামা পেশ করে সিবিআই-ও. হলফনামায় সিবিআই জানিয়েছে অসম সরকার চিটফান্ড প্রতারণায় সিবিআইকে তদন্তের অনুরোধ জানিয়েছে. তবে তদন্তের বিষয়ে সিবিআই সদর দফতরের তরফে অনুমোদন মেলেনি। হলফনামায় জানানো হয়েছে রোজ ভ্যালি, প্রয়াগের মতো আরও বেশ কয়েকটি অর্থলগ্নি সংস্থার বিরুদ্ধেও তদন্তের জন্য অনুরোধ জানিয়েছে অসম সরকার। সারদাগোষ্ঠী সহ বেশ কয়েকটি অর্থলগ্নি সংস্থার বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া অভিযোগের তদন্তভার সিবিআইয়ের হাতে তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ত্রিপুরা সরকার।
 



First Published: Thursday, May 16, 2013 - 10:50


comments powered by Disqus