দুই সাগরেদ সহ কাশ্মীর থেকে গ্রেফতার সুদীপ্ত সেন

পুলিসের জালে ধরা পড়লেন সুদীপ্ত সেন। কাশ্মীরের সোনমার্গ থেকে ঘনিষ্ঠ সহকর্মী দেবযানী মুখার্জি এবং অরবিন্দ সিং চৌহানের সহ সারদা গ্রুপের কর্ণধার সুদীপ্ত সেনকে গ্রেফতার করে পুলিস। প্রাথমিক ভাবে পরিচয় না জানালেও পরে কলকাতায় বিধান নগরের কমিশনার রাজীব কুমার ধৃতদের পরিচয় নিশ্চিত করেন।

Updated: Apr 23, 2013, 05:26 PM IST

পুলিসের জালে ধরা পড়লেন সুদীপ্ত সেন। কাশ্মীরের সোনমার্গ থেকে ঘনিষ্ঠ সহকর্মী দেবযানী মুখার্জি এবং অরবিন্দ সিং চৌহানের সহ সারদা গ্রুপের কর্ণধার সুদীপ্ত সেনকে গ্রেফতার করে পুলিস। প্রাথমিক ভাবে পরিচয় না জানালেও পরে কলকাতায় বিধান নগরের কমিশনার রাজীব কুমার ধৃতদের পরিচয় নিশ্চিত করেন।
সকালেই সুদীপ্ত সেন সন্দেহে একটি হোটেল থেকে এঁদের গ্রেফতার করা হয়। তাঁদের সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গের নম্বর প্লেট সহ একটি স্করপিও গাড়িও আটক করা হয়েছে। সকালেই বিধান নগর পুলিসের একটি দল সোনমার্গে গিয়ে তাঁদের সনাক্ত করে। বিধান নগর পুলিসের আরও দুটি টিম কাশ্মীরের উদ্দেশে রওনা দিয়েছে। আগামিকাল তাঁদের কাশ্মীরের আদালতে তোলা হবে। তারপর ট্রানজিট রিমান্ডে দিল্লিতে অথবা সরাসরি বিমান পেলে একেবারে কলকাতাতেই নিয়ে আসা হবে।
প্রাথমিক ভাবে গাড়িতে পশ্চিমবঙ্গের নম্বর প্লেট দেখে সন্দেহ হয় জম্মু কাশ্মীর পুলিসের। তারপর এ রাজ্য থেকে পাঠানো তথ্য ও ছবির ভিত্তিতে তাঁদের আটক করে পুলিস।
সারদা চিট ফান্ডের কেলেঙ্কারি প্রকাশিত হওয়ার পর থেকে  ১৬ এপ্রিল থেকেই গা ঢাকা দেন সুদীপ্ত সেন এবং সারদা চিট ফান্ডের একাধিক কর্তারা। 
সূত্রে খবর, ধৃত অরবিন্দ সিং চৌহান সারদা গ্রুপের অন্যতম ডাইরেক্টর। দেবযানী দেবী বহু দিন ধরেই সুদীপ্ত বাবুর ছায়াসঙ্গী। সারদা গ্রুপের প্রতারণার যাবতীয় তথ্য, হিসেব নিকেশ নখদর্পনে ছিল তাঁর। পুলিসের তথ্য অনুযায়ী চিটফান্ড কেলেঙ্কারির বিপদ আঁচ করে মার্চের শেষেই গা ঢাকা দিয়ে দেন দেবযানী।

কলকাতায় পুলিসের সঙ্গে সারদার এজেন্টদের ধস্তাধস্তি

ব্যাঙের ছাতার মতো চিটফান্ড, সর্বনাশের পথে রাজ্যবাসী

সারদার গ্লোবাল মোটর্স কারখানা ক্রোক করল ব্যাঙ্ক

সব জেনেও সাধারণ মানুষের ঘাড়েই দোষ চাপাল সরকার