লড়াই শেষ সুদীপ্তের, হাসপাতালে এখনও লড়ছেন জোসেফ

কাল বামফ্রন্টের ধিক্কার দিবস

৬টা ৩০: ''সুদীপ্তর মৃত্যু মর্মান্তিক। আগামিকাল রাজ্য বামফ্রন্টের প্রতিবাদ কর্মসূচী পালিত হবে। রাজ্যের সব জেলায় ধিক্কার মিছিল হবে। ঢাকুরিয়া, টালিগঞ্জ ও গড়িয়ায় স্থানীয় ভিত্তিতে ১২ ঘণ্টার বনধ। যানবাহন ও জরুরী পরিষেবা ধর্মঘটের আওতার বাইরে", বললেন বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু। আবারও বিচার বিভাগীয় তদন্তের দাবি বিমান বসুর। ''রাজ্যে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা হোক। মুখ্যমন্ত্রীর আগাম মন্তব্য করা বন্ধ হোক", বললেন বিমান বসু।

৫টা ১৫: এসএফআই সদর দফতরে পৌঁছল সুদীপ্তর দেহ। রয়েছেন বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য, বিমান বসু ও দলের প্রথম সারির নেতারা।

৪টে ৩০: সিবিআই তদন্তের দাবি করলেন সুদীপ্তর দিদি সুমিতা সেনগুপ্ত।

৪টে ২০: বাড়ি থেকে রওনা দিল সুদীপ্তর শেষ যাত্রা। এর পর এসএফআই এর রাজ্য সদর দফতরে যাবে তাঁর দেহ।

৪টে: সুদীপ্তর দেহ পৌঁছল নিউ গড়িয়ার বাড়িতে

৩টে ২২: বাড়ির দিকে রওনা দিল সুদীপ্তর শেষযাত্রা। মিছিলে হাজার হাজার ছাত্রছাত্রী। মিছিলে রয়েছে এলাকার ছোট থেকে বড় সবাই।

৩টে ০২: সুদীপ্ত গুপ্তর ময়না তদন্তের রিপোর্ট। শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। কপালে গুরুতর আঘাত। সুদীপ্তর চোয়ালে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। জানালেন চিকিৎসকরা।  

২টো ৪৪: নাতাজি নগর কলেজে পৌঁছল সুদীপ্তর দেহ। এই কলেজেই রাজনীতির হাতেখড়ি হয় প্রয়াত ছাত্র নেতার।

২টো ১০: পুলিস হেফাজতে এসএফআই নেতার মৃত্যুর ঘটনায় অ্যাডিশানাল সিপি পর্যায়ের তদন্ত দাবি করল রাজ্য মানবাধিকার কমিশন।  নিরপেক্ষ ভাবে ঘটনার তদন্ত করবে মানবাধিকার কমিশনও।  

১টা ৫৫: নিহত ছাত্রনেতার মরদেহ নিয়ে শেষযাত্রা শুরু। কান্নায় ভেঙে পড়লেন সহকর্মীরা।

১টা ৪৫: 'মুখ্যমন্ত্রী খুনি': চিত্রপরিচালক মৃণাল সেন।

১টা ৩৫: ময়নাতদন্ত শেষ সুদীপ্তর দেহর।

১টা ২৫: গোটা ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্তের দাবি প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি প্রদীপ ভাট্টাচার্যের।

১টা ২০: পুলিসের সদর দফতর লালবাজারে পৌঁছলেন মুখ্যমন্ত্রী। গতকালের ছাত্রমৃত্যুর ঘটনায় পুলিস রিপোর্ট নিয়ে নগরপালের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। পুলিস সূত্রে একথা জানা গিয়েছে।

১২টা ৪৪: "মুখ্যমন্ত্রীর সাহায্য চাই না।" জানালেন সুদীপ্তর বাবা। "ছেলেটাকে মেরে শেষ করে দিয়েছে। আমি টাকা নিতে পারব না। দিদি আইনের লড়াইয়ে আপনি আমার পাশে দাঁড়ান", জানালেন প্রণব গুপ্ত।  

১২টা ২৬: সুদীপ্তর মৃত্যু পুলিসের হেফাজতে হয়েছে। দায় এড়াতে পারেন না পুলিসমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মন্তব্য সিপিআইএম নেতা মহম্মদ সেলিম।   

১২টা ১৫: এসএসকেএম মর্গে পৌঁছলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এসএফআইএর সমর্থকরা বিক্ষোভ দেখান। "যে কোনও মৃত্যুই দুর্ভাগ্যজনক", সংবাদমাধ্যমকে জানান মুখ্যমন্ত্রী।

১২টা ১০: "আমরা পুলিসকে বলেছিলা লাঠিচার্জ করবেন না। আমাদের গ্রেফতার করুন।" হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টাকে জানালেন জোসেফ হোসেন

১১টা ৫৫: সুদীপ্তর মৃত্যুতে বাসের চলক ও খালসি জড়িত একথা মনতে চাইছে না মৃত ছাত্রের পরিবার।

১১টা ৫০: পুলিস হেফাজতে সুদীপ্ত গুপ্তর মৃত্যুর ঘটনা। কাল রাজ্যজুড়ে ছাত্র ধর্মঘটের ডাক বাম ছাত্র সংগঠনগুলির।  

১১টা ৪৫: এসএফআই নেতা সুদীপ্ত গুপ্তর মৃত্যুর ঘটনায় গ্রেফতার ২। ধৃত বাসের চালক ও খালাসি। চালক রাজু দাসকে গ্রেফতার করে পুলিস। গতকাল অই বাসে ছিলেন সুদীপ্ত গুপ্ত।

১০টা ৩০: কোনওদিনই হিংসাশ্রয়ী রাজনীতিতে বিশ্বাস করতেন না সুদীপ্ত গুপ্ত। অথচ তাঁকেই কিনা হিংসার শিকার হতে হল! ছেলের অকাল মৃত্যুতে এটাই আক্ষেপ বাবা প্রণবকুমার গুপ্তের। পুলিস কী করে এমন নির্মম অত্যাচার চালাতে পারে, সেই প্রশ্নের উত্তর খুঁজে পাচ্ছেন না তিনি। গত বছর স্ত্রীকে হারিয়েছেন। নববর্ষের আগে হারালেন তেইশ বছরের ছেলেকে। পুলিসের মারে নিহত ছাত্রনেতা সুদীপ্ত গুপ্তর বাবা তবু মানসিক ভাবে অটল। ছেলের মৃত্যুর ঘটনায় দোষী পুলিসকর্মীরা যাতে উপযুক্ত শাস্তি পান, তার জন্য আইনি লড়াই চালিয়ে যাবেন বলে জানিয়েছেন তিনি।







First Published: Wednesday, April 03, 2013, 18:55


comments powered by Disqus