কার্টুনকাণ্ডের নেপথ্যেও সিন্ডিকেট?

Last Updated: Sunday, April 15, 2012 - 10:27

অধ্যাপক নিগ্রহের ঘটনায় ৪ তৃণমূল নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিস। তাদের বিরুদ্ধে হেনস্থা ও মারধরের অভিযোগ এনেছেন যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক অম্বিকেশ মহাপাত্র। কারা এই ৪ জন? কী কারণে তারা অম্বিকেশ মহাপাত্র ও তাঁর প্রতিবেশীদের ওপর চড়াও হলেন। ২৪ ঘণ্টা`র অন্তর্তদন্তে জানা গিয়েছে, ৪ জনই সক্রিয় তৃণমূলের দলীয় সংগঠনে। কেউ দলের প্রভাবশালী নেতা, তো কেউ দলের সক্রিয় কর্মী।
অভিযুক্ত প্রথম জনের নাম অরূপ মুখার্জি। নয়বাদ- চক গড়িয়া তৃণমূল কংগ্রেসের ব্লক সভাপতি। বাড়ি চক গড়িয়ায়, পঞ্চসায়রে। এলাকার প্রভাবশালী তৃণমূল নেতা হিসেবেই পরিচিত অরূপ মুখার্জি। পেশায় প্রোমোটার ও নির্মাণ সামগ্রীর ব্যবসায়ী। একই সঙ্গে সিন্ডিকেটের পাণ্ডা। দ্বিতীয় জনের নাম শেখ মুস্তাফা। ১৯, নিউ গড়িয়া হাউসিং কো-অপরেটিভেই তাঁর বাড়ি। সক্রিয় তৃণমূল কর্মী। পেশায় ঠিকাদার, ইমারতি দ্রব্যের সরবরাহকারী।
তৃতীয় অভিযুক্তের নাম নিশিকান্ত গড়াই। বাড়ি গড়িয়া স্টেশনের কাছে। তৃণমূল কর্মী হিসেবে পরিচিত। পেশায় ঠিকাদারি ও ইমারতি দ্রব্যের সরবরাহকারী। এবং চতুর্থ অভিযুক্ত অমিত সর্দারের বাড়ি নয়াবাদ এলাকাতে। সক্রিয় এই তৃণমূল কর্মী সিন্ডিকেটের সঙ্গেও যুক্ত। এই অমিত সর্দারই অম্বিকেশ মহাপাত্র-সহ বাকিদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ জানিয়েছিল। স্বাক্ষর করে লিখেছিল চকগড়িয়া ছিট নয়াবাদ তৃণমূল কংগ্রেস আঞ্চলিক কমিটি। শুধুমাত্র ক্ষমতাসীন শাসকদলের নেতা কর্মী হওয়ার সুবাদেই ব্যঙ্গচিত্র পাঠানোর জন্য শাস্তি দেওয়ার অধিকার অর্জন করেছিল এই ৪ জন।
 



First Published: Sunday, April 15, 2012 - 10:27


comments powered by Disqus