আঁটসাঁট নিরাপত্তায় সাজছে ১৯-এর ব্রিগেড

ব্রিগেডের দিন সকাল নটার পর থেকে হাজারা-পার্কস্ট্রিটের দিক থেকে ধর্মতলামুখী সব গাড়ি নিয়ন্ত্রয়ণ করা হবে।

Updated: Jan 11, 2019, 07:29 PM IST
আঁটসাঁট নিরাপত্তায় সাজছে ১৯-এর ব্রিগেড

নিজস্ব প্রতিবেদন : কেন্দ্রে মোদী সরকারের বিভিন্ন জনবিরোধী নীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে ১৯ জানুয়ারি ব্রিগেডের ডাক দিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। তৃণমূলের সেই উনিশে জানুয়ারির ব্রিগেড ঘিরে প্রস্তুতি তুঙ্গে। শক্তপোক্ত মঞ্চ তৈরির দিকেই বিশেষ জোর দেওয়া হচ্ছে। লোহার বিম দিয়ে তৈরি হচ্ছে মূল মঞ্চের কাঠামো।  দলের নেতা মন্ত্রীদের জন্য থাকছে আরও একটি মঞ্চ। তৃতীয় মঞ্চে হবে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

আরও পড়ুন, "বাংলায় দুর্গাপুজো বন্ধ করতে চাইছেন মোদী"

ব্রিগেড মঞ্চকে মোদী বিরোধী মহামঞ্চ হিসেবে তুলে ধরতে তত্পর তৃণমূল নেত্রী। সেদিন সভামঞ্চে হাজির থাকবেন অন্যান্য রাজ্যের রাজনৈতিক  ব্যক্তিত্বরা। নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তায় মুড়ে ফেলা হবে গোটা ব্রিগেড চত্বর। মোট ৩টি মঞ্চ হবে। মূল মঞ্চে থাকবেন মুখ্যমন্ত্রী ও অন্যান্য রাজ্যের ব্যক্তিত্বরা। দ্বিতীয় মঞ্চে থাকবেন দলের নেতা,মন্ত্রী,অতিথিরা। তৃতীয় মঞ্চে হবে সাংস্কৃতিক প্রদর্শন। মঞ্চ ঘিরে তৈরি করা হচ্ছে হাই সিকিউরিটি জোন।

আরও পড়ুন, 'দ্যা অ্যাক্সিডেন্টাল প্রাইম মিনিস্টার' ঘিরে বড়সড় বিভাজন প্রদেশ কংগ্রেস শিবিরেই

শহরজুড়ে থাকবে  ১০০-র বেশি ক্যাম্প। ব্রিগেডে যোগ দিতে যাঁরা আসবেন, তাঁদের থাকার ব্যবস্থা করা হচ্ছে গীতাঞ্জলি স্টেডিয়াম,ক্ষুদিরাম অনুশীলন কেন্দ্র,উত্তীর্ণ,সল্টলেক পুরসবার মেলার মাঠ, ও বিভিন্ন ধর্মশালায়। বেলা ১২টা থেকে শুরু হবে ব্রিগেড। সকাল নটার পর থেকে হাজরা-পার্কস্ট্রিটের দিক থেকে ধর্মতলামুখী সব গাড়ি নিয়ন্ত্রয়ণ করা হবে। ব্রিগেড সামলানোর দায়িত্বে থাকবেন ৫ হাজার ভলান্টিয়ার।